স্যোসাল মিডিয়া ট্রায়াল বন্ধ করুন!

মানিক মুনতাসির : আপনি কারো পক্ষে কিংবা বিপক্ষে বলতেই পারেন। এটা আপনার ব্যাক্তি স্বাধীনতা। কিন্তু তার আগে ভাবা উচিত আপনি যা বলছেন তার সত্যতা এবং যৌক্তিকতা কতটুকু। আপনার অনুমান নির্ভর মন্তব্যের দরুণ নিপরাধ ব্যাক্তি যদি ক্ষতিগ্রস্ত হন তার দায়ভাব আপনারই ওপর বর্তাবে। আর কোন অপরাধীকে ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি অপরাধী বলতে পারেন না যদি তা কোর্টে প্রমাণিত না হয়। যদি বিষয়টি থাকে তদন্তাধীন এবং বিচারাধীন। আবার চোখে দেখা অপরাধ আর না দেখা অপরাধের বেলায় সেটা ভিন্ন হতে পারে। তবে এখানেও কথা আছে-সব সময় ঘটনার মূল কাহিনী সাদা চোখে ধরা পড়ে না। যার ফলে মূল অপরাধী অনেক সময় দৃষ্টির আড়ালেই থাকে।

এবার আসুন যারা স্যোসাল মিডিয়ায় মেতে আছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলি-এসব নিয়ে মাতামাতি না করে নিজের চেহারাটা আয়নায় দেখুন। আর যে কােন ঘটনা ঘটলে সেটা তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। আপনি সাংবাদিক ধরে নিলাম আপনার অনেক ক্ষমতা। আপনি অনেক তথ্য জানেন, পারলে সেগুলো নিরপেক্ষভাবে পত্রিকায় প্রকাশ করুন। ঘটনার পরতে অপরতে ইচ্ছামত রং মাখিয়ে স্যোসাল মিডিয়াকে না মাতিয়ে নিজের চরকায় তেল দিন। স্যোসাল মিডিয়ায় সাধু না সেজে নিজের বুকে হাত দিয়ে বলুন আপনি আসলেই কি চান। ঘটনার সাথে কোনভাবেই জড়িত নয় এমন কাউকে ফাঁসিয়ে অন্য কাউকে খুশি করাতে চান নাকি কারও ভায়া হিসেবে কাজ করছেন সেটাও ভাবুন।

কে দায়ী কে দোষী এটা প্রমাণ করার দায়িত্ব পুলিশ আর আদালতের । দয়া করে সে কাজটা স্যোসাল মিডিয়ায় এসে নিজের মনগড়াভাবে প্রচার করবেন না। এতে বরং শুধু বিদ্বেষ আর বিভ্রান্তিই ছড়াবে। কোন একটি পক্ষ এরমধ্যে আবার মজাও নিতে পারে। সেটাও মাথায় রাখুন। আজকে ফেসবুক আছে তাই যা ইচ্ছা লিখে দেবেন। যাকে ইচ্ছা ফাঁসিয়ে দেবেন। এসব স্বেচ্ছাচারী মনোভাব ছাড়ুুন।

আর যারা বিদেশের মাটিতে বসে অনুসন্ধানের নামে গু-গোবর ভরা মনগড়া কিছু বিষয় নিয়ে ইউটিউব আর স্যোসাল মিডিয়ায় ঝড় তোলার চেষ্টা করছেন তাদেরকে মানসিকভাবে অসুস্থ বলেই মনে হয়েছে। এসব গোঁজামিল মার্কা প্রতিবেদন বানিয়ে জনগনেক সাময়িক এক ধরনের চমক দেয়া ছাড়া আর কিছুই করা যায় না। দুই/তিনটি স্টীল ছবি দিয়ে ভিডিও বানিয়ে নিজের মত বাক্য বসিয়ে দিলেই সেগুলো আর যাই হোক অনুসন্ধান হয় না। অনুসন্ধানের নামে এসব দু পয়সা কামানোর ধান্দাবাজী ছাড়ুন।

লেখক : সাংবাদিক

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.