এক তরমুজেই লাভ দেড় শ টাকা!

আড়াই শ টাকায় পিস প্রতি তরমুজ কিনে শিবচরে কেজি দরে প্রতি পিস সাড়ে ৩শ থেকে ৪ শ টাকায় বিক্রি করে পিস প্রতি ১শ থেকে দেড় শ টাকা লাভ করছে ব্যবসায়ীরা। সোমবার ভ্রাম্যমাণ আদালতের এক অভিযানে এমনি তথ্য বের হয়ে আসে।

ন্যায্য মূল্যে তরমুজ বিক্রি নিশ্চিতে অভিযানের প্রথম দিনেই ২ ব্যবসায়ীকে আর্থিক জরিমানা করা হয়। আর কেজির পরিবর্তে পিস প্রতি ১০ টাকা লভ্যাংশের বেশিতে তরমুজ বিক্রি করার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ব্যবসায়ীদের সাবধান করা হয়।

জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শিবচর পৌর বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানকালে কেজি দরে তরমুজ বিক্রির অপরাধে ২ ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে ১ হাজার করে মোট ২ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরবর্তীতে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি করলে ও পিস প্রতি ১০ টাকার বেশি লাভে বিক্রি করলে ব্যবসায়ীদের জেলসহ কঠোর সাজার হুঁশিয়ারি দেন। অভিযানকালে শিবচর থানা পুলিশের একটি দল উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান বলেন, বাজার পরিদর্শন করে আমরা দেখতে পেয়েছি একটি তরমুজ এক শ থেকে দেড় শ টাকা লাভে কেজি দরে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। তাই অভিযানের প্রথম দিন কেজি দরে ও বেশি লাভে তরমুজ বিক্রির অপরাধে দুই ব্যবসায়ীকে আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে। কৃষি বিপণন আইন ২০১৮ অনুযায়ী কেজি দরে তরমুজ বিক্রির কোনো সুযোগ নেই। আইন অনুসারে ফল বিক্রিতে ১০ টাকার বেশি লাভ করা যাবে না।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.