পদ্মা মূল সেতুর ব্যয় কত?

ওয়াসি উদ্দিন মাহিন : ক্রিমিয়া সেতু, ধোলা সাদিয়া সেতু সহ অনেক সেতুর সাথে পদ্মা সেতুর খরচের একটা পার্থক্য নির্ণয় করে বিভিন্ন পোস্ট দেখি।

মজার ব্যাপার হল কোন কিছু বিচার বিশ্লেষণ না করেই শুধু সেতুর দৈর্ঘ, সেতুর লেন সংখ্যা বিবেচনায় নিয়েই আমরা পদ্মা সেতুর খরচ নিয়ে মাতামাতি করি।

একটি চমকপ্রদ তথ্য দিব। যদি শুধুমাত্র সেতুর দৈর্ঘ এবং লেন সংখ্যা বিচার করে আপনারা খরচের হিসাব করতেই চান তাহলে জেনে রাখুন পদ্মা সেতুর খরচ ৩০,০০০ কোটি টাকা নয়।

পদ্মা মূল সেতুর খরচ ১২,১৩৩ কোটি টাকা যেটির কাজ পেয়েছে চায়না মেজর ব্রিজ কর্পোরেশন। হ্যা ঠিক শুনেছেন। মূল সেতুর সাইজ দিয়ে তুলনা করলে মূল সেতুর খরচ ই হিসাবে আনা উচিত।

কারন ঢোলা সাদিয়া ব্রিজ করার সময় নদী শাসন খরচ হয়নি।

পদ্মা সেতুর ক্ষেত্রে আমরা জানি কয়েক দফায় খরচ বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু কিসের খরচ??? মূল সেতুর খরচ বাড়েনি। বেড়েছে নদী শাসন সহ অন্যান্য খরচ। ২০১৪ সালে মূল সেতুর জন্য $১.২ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি করা হয় যেটি পরবর্তীতে বেড়ে $১.৫ বিলিয়নের মত হয়েছিল। ওই পর্যন্তই। এরপর আর এখানে খরচ বাড়েনি।

মূলত নদী শাসনের কাজেই ব্যয় বেড়েছে বেশি। প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা বেড়ে নদী শাসন খরচ এখন দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ৪০০ কোটি টাকায়। প্রাথমিকভাবে আট কিলোমিটার নদী শাসনের কথা থাকলেও এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯.৩ কিলোমিটার। জাজিরা ও মাওয়া অংশে সংযোগ সড়ক, সার্ভিস এরিয়া ও আনুষঙ্গিক অবকাঠামো নির্মাণ খরচ মূল প্রকল্পে ঢুকে গেছে। আগে ইসলামিক উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) অর্থায়নে আলাদাভাবে এ অবকাঠামো তৈরির কথা ছিল। কিন্তু সংযোগ সড়ক প্রকল্প, নদী শাসন প্রকল্প, পূনর্রবাসন প্রকল্প সহ সব প্রকল্প একটি প্রকল্পের আওতায় দেখানো হয় বলেই এই প্রকল্পের নাম পদ্মা সেতু প্রকল্প নয়। বরং এর নাম পদ্মা মাল্টিপারপাস সেতু প্রকল্প। সব প্রকল্পের খরচ এক সাথে দেখানো হয়েছে বিধায় এর খরচ ৩০০০০ কোটি টাকা।

১২ কিমি এপ্রোচ রোড, সার্ভিস এরিয়া সহ খরচ ১৯০৭ কোটি টাকা। এর ভেতর বর্তমান ফেরিঘাট পরিবর্তন করে নতুন ঘাট নির্মান সহ সেই ঘাট পর্যন্ত ৪ লেন সড়ক সংযোগ ও রয়েছে।

পূনর্বাসনের জন্য খরচ হয়েছে ১৫১৫ কোটি টাকা। যেটা দিয়ে উভয় পাশে বিশাল পুনর্বাসন কেন্দ্রের নামে শহর গড়ে তোলা হয়েছে। পানির ট্যাংক, বাজার, মসজিদ, কমিউনিটি সেন্টার সহ সব সুবিধা রয়েছে এই কেন্দ্রে।

১৫৩০ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ বাবদ খরচ হয়েছে ১২৯৯ কোটি টাকা। পরিবেশের জন্য ১২৯ কোটি টাকা, কনসাল্টেশন এর জন্য ৬৭৮ কোটি টাকা। বেতন, সুদ, পরিবহন সহ নানান খাতে খরচ রয়েছে ১৭৩১ কোটি টাকা।

নদী শাসনের খরচ ৯৪০০ কোটি টাকা। মূল ডিপিপি’তে ১ হাজার ৫৩০ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ব্যয় প্রাক্কলত ছিলো ১ হাজার ২৯৯ কোটি টাকা। কিন্তু এখন মোট ভূমিঅধিগ্রহণ করতে হবে ২ হাজার ৬৯৮ হেক্টর। অতিরিক্ত জমি বাবদ মোট ব্যয় প্রয়োজন ২ হাজার ৬৯৯ কোটি টাকা। পদ্মাসেতু প্রকল্পে ভূমিসহ অধিগ্রহণ বাবদ আরও এক হাজার ৪০০ কোটি টাকা প্রয়োজন হয়েছে। সার্ভিস এরিয়া নির্মাণে খরচ ২০৮ কোটি টাকা।

কিন্তু মূল সেতুর খরচ ওই ১২১৩৩ কোটি টাকাতেই আছে। অনেকে আবার পদ্মা সেতুর খরচ জায়েজ করার জন্য ৬০ তলা সমান পাইলের বিবরন দিয়ে বোঝাতে চান যে খরচ ৩০০০০ কোটি ঠিক ই আছে। মাটির নীচে এত গভীরে পাইল স্থাপন করা যদিও বিশ্বের দ্বিতীয় ঘটনা তথাপি এই সব কাজের খরচ ওই ১২১৩৩ কোটি টাকার ভেতরেই।

ঢোলা সাদিয়া ব্রিজের ওজন বহন ক্ষমতা যেখানে ৪২ টন, সেখানে আমরা পাচ্ছি প্রায় ২২০০ টন ওজন নিতে সক্ষম একটি ব্রিজ। তাই এসব বিভিন্ন সেতুর সাথে চোখ বুজে কম্পেয়ার করার আগে জানতে হবে কোনটা কি। মাল্টিপারপাস সেতু যেখানে একাধিক প্রকল্প একটি প্রকল্পের অধিনে সেই প্রকল্পের সাথে অন্য শুধু সেতু প্রকল্পের তুলনা দেয়া বোকামি।

চাইনয়া মেজর ব্রিজের রেকর্ড খারাপ নয়। কিন্তু সিনো হাইড্রো নিয়ে অভিযোগ আছে। নদীশাসনের কাজ সিনো হাইড্রো করছে। আমাদেরকে উত্তম দরকষাকষি শিখত্র হবে৷ যদি সেটা আমরা পারতাম তাহলে কিছু খরচ বাচানো সম্ভব হত।

তবে এক্ষেত্রেও এদেশের মানুষ তাদের দায় এড়াতে পারেনা। পদ্মার চরে অধিগ্রহণ করা হবে শুনেই আশেপাশের স্থানীয়রা বেশি টাকা পাবার আশায় রাতারারি টিনশেড বাড়ি বানায় ফেলে। আমাদের মানসিকতা যদি এমন হয় তাহলে দোষ কাদের আগে দেয়া উচিত?

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.