আবুজা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ

 আবুজা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ

বাসস : নাইজেরিয়ায় ১৫তম আবুজা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় বাংলাদেশ হাইকমিশন সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করেছে।
আজ ঢাকায় প্রাপ্ত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আবুজা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির (এসিসিআই) উদ্যোগে আয়োজিত এবারের বাণিজ্য মেলার প্রতিপাদ্য ছিল ‘‘ট্রেড এন্ড কমার্স বিইয়ন্ড বর্ডার্স”(সীমানা পেরিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্যেও প্রসার)। মেলা গত ২৪ নভেম্বর শুরু হয়ে ৪ ডিসেম্বর শেষ হয়। আনুষ্ঠানিক ভাবে মেলার উদ্বোধন হয় ২৬ নভেম্বর।
মেলা চলাকালে বাংলাদেশের স্টলে ছিল উপচেপড়া ভীড়। দর্শর্নার্থী, ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা ও সম্ভাবনাময় আমদানিকারকদের মুখে ছিল বাংলাদেশের পণ্য সম্ভারের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা। মিশনের আগ্রহে মেলার সাইডলাইনে অনুষ্ঠিত বৈঠককালে কয়েকটি কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বাংলাদেশ সফরের ইচ্ছা প্রকাশের পাশাপশি বাংলাদেশের পণ্য আমদানির আগ্রহও ব্যক্ত করেন। মেলার শেষ দিনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার বিদোষ চন্দ্র বর্মনের নিকট একটি সার্টিফিকেট প্রদান করেন আবুজা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির নির্বাহী পরিচালক।
সরকারের অর্থনৈতিক কূটনীতির নীতিঅনুসরণ করে বাংলাদেশ হাইকমিশন উক্ত বাণিজ্য মেলায় অংশ গ্রহণ কওে, যা নাইজেরিয়ার শিল্প, ব্যবসা ও বিনিয়োগবিষয়ক মন্ত্রী অতুনবারিচার্ড আদেনিয়ী আদেবায়ো নাইজেরিয়ার ফেডারেল ক্যাপিটাল টেরিটরি বিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ মুসা বেলো ও আবুজা চেম্বার অবকমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট প্রিন্স আডেটো কুনবোকাইওডেসহ অন্যান্যের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিক ভাবে মেলার উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার বিদোষ চন্দ্র বর্মন ছাড়াও বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত/হাইকমিশনার, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রীদ্বয় বাংলাদেশ স্টল ঘুরে দেখেন এবং স্টলে স্থান পাওয়া পণ্যের প্রশংসা করেন।
রপ্তানি যোগ্য বিভিন্ন পণ্যের পসরা দিয়ে সাজানো হয় বাংলাদেশের বৃহৎ স্টল। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল ঔষধ, সিরামিক পণ্য, পাট ও চামড়াজাত পণ্য, তৈরি ও নীট পোশাক, হস্তশিল্প, চা, বৈদ্যুতিক ও ইলেকট্রিক দ্রব্য এবং কৃষিজাতপণ্য।
স্টলে মিশনের নিজস্ব সংগ্রহছাড়াও বাংলাদেশের বিখ্যাত কয়েকটি কোম্পানি কর্তৃক উপহার স্বরূপ প্রদত্ত রপ্তানিযোগ্য পণ্য প্রদর্শনীর জন্য রাখা হয়েছিল। রপ্তানিপণ্য ছাড়াও বিনিয়োগ, বাণিজ্য, পর্যটন সম্ভাবনা ইত্যাদি বিষয়ে অনেক প্রকাশনা এবং বাংলাদেশের উন্নয়ন অভিযাত্রার ওপর বিভিন্ন আকর্ষণীয় ব্যানার ও পোস্টার দিয়ে স্টলটিকে সুসজ্জিত করা হয়। একই সাথে, প্রামাণ্য চিত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, উন্নয়ন কর্মকান্ড এবং বিনিয়োগের সুবিধাদি তুলে ধরা হয়।

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.