স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক বিবেচনায় নতুন করে মামলা দায়ের বা তাদের আটক না করার নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশসহ (ডিএমপি) সারাদেশের পুলিশের সব ইউনিটকে এ নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সদর দফতরের একাধিক সূত্র।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপি উপকমিশনার (ক্রাইম) মুনতাসীর রহমান বলেন, ডিএমপির সব ইউনিটকে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এই নির্দেশনা মোতাবেক পুলিশ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ পর্যন্ত কাজ করবে।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) মশিউর রহমান বলেন, নতুন করে রাজনৈতিক মামলা দেওয়া ও গ্রেফতারের ক্ষেত্রে আমাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে এর আগের মামলায় কারও বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকলে তাকে গ্রেফতার করা যাবে কিংবা নতুন করে কোনো ঘটনা ঘটলে মামলাও করা যাবে।

এদিকে, পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী সারাদেশেই পুলিশের সব ইউনিটকে বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক মামলা দায়ের ও তাদের আটক না করার এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে রাজনৈতিক বিবেচনায় নেতাকর্মীদের আটক ও তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের অভিযোগ করে আসছে বিএনপি। এর মধ্যে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হলে তাতে যোগ দেয় বিএনপিও। এই জোটের পক্ষ থেকে যে সাত দফা দাবি উত্থাপন করা হয়, তার মধ্যে অন্যতম ছিল রাজনৈতিক বিবেচনায় বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের হয়রানি ও গ্রেফতার না করা এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা না দেওয়া।

এর মধ্যে গত ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও ১৪ দলীয় জোটের সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। ওই সংলাপে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি আশ্বাস দেন, বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের এ ধরনের হয়রানি করা হবে না। পরে ৭ নভেম্বর দ্বিতীয় দফা সংলাপে বিএনপির পক্ষ থেকে তাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক মামলার তালিকাও দেওয়া হয় ক্ষমতাসীন দলকে। এসময়ও আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হয়, নির্বাচনের আগে আর বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হবে না বা তাদের আটক করা হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.