জেলা প্রতিনিধি, রাঙ্গামাটি : টানা তিন মাস বন্ধ থাকার পর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ কৃত্রিম জলাধার কাপ্তাই হ্রদে মঙ্গলবার মধ্য রাতের পর মাছ শিকার শুরু হয়েছে। হ্রদে ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য। সকাল থেকেই জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে মাছ সংগ্রহ করে ঘাটে আনা হচ্ছে। অতঃপর সরকারি রাজস্ব মিটিয়ে ব্যবসায়ীরাও এসব মাছ পাঠিয়ে দিচ্ছেন দেশের বিভিন্ন স্থানে।

প্রতি বছরের মতো এবারও ১ মে থেকে কাপ্তাই হ্রদে মাছের বংশবৃদ্ধি, হ্রদে অবমুক্ত করা পোনা মাছের সুষ্ঠু বৃদ্ধি, মাছের প্রাকৃতিক প্রজনন নিশ্চিতকরণে তিন মাস মাছ শিকার বন্ধ ছিল। মঙ্গলবার রাত ১২টার পর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলে মাছ ধরতে নামেন জেলেরা। তিন মাস পর আবার মাছ ব্যবসায়ী আর জেলেদের পদভারে মুখর হয়ে উঠেছে ৭২৫ বর্গকিলোমিটার আয়তনের কৃত্রিম কাপ্তাই হ্রদ। বুধবার সকাল থেকেই জেলার প্রধান মৎস্য আহরণ কেন্দ্রে ছিল মাছ ব্যবসায়ীদের ভিড়। প্রথম দিন মাছ শিকারের পরিমাণ দেখে খুশি ব্যবসায়ীরাও।

বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) ব্যবস্থাপক কমান্ডার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, প্রথম দিনে মৎস্য আহরণ দেখে মনে হচ্ছে গত বছরের চেয়ে এ বছরও অধিক রাজস্ব আয় করা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.