ডেস্ক : ২১টি বৈঠক  হওয়ার পরও ঢাকায় সাড়ে ৪ হাজার নতুন বাস নামানো স্বপ্নই রয়ে গেছে। পুরাতন জরাজীর্ণ বাস তুলে প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক ঢাকাজুড়ে পাঁচ রঙয়ের নতুন বাস নামানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন। প্রকল্পের কনসালটেন্ট হিসেবে যারা পরিকল্পনা প্রস্তুত করেছিলেন এখন সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর তাদের চেনে না।

এ অবস্থায় বাস নামনোর স্বপ্ন অনেকটা ফিকে হয়ে গেছে বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

প্রকল্পের কনসালট্যান্ট পরিবহন বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ তিন চার জন প্রকৌশলীকে নিয়ে আনিসুল হক প্রথম ছক এঁকেছিলেন। তারা এখন সাড়ে ৪ হাজার বাসের ফাইল নিয়ে কোথাও গেলে বলা হয়, ‘আপনারা কারা।

ক্ষোভ প্রকাশ করে ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘বিদেশ থেকে এরকম কনসালটেন্সি কাজ করে আনলে ৫ কোটি টাকা দিতে হত। কিন্তু আমরা কোন টাকা নেইনি। বরং চেয়েছিলাম দেশের প্রধান শহরের বাসের সমস্যা সমাধান হোক।’’

`কিন্তু আমরা এ ফাইল নিয়ে এখন কোথাও গেলে তারা আমাদের চেনেন না’-বলেন সালেহ উদ্দিন আহমেদ।

তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রীর সুস্পষ্ট লিখিত নির্দেশ রয়েছে যে, সিটি করপোরেশন এটা বাস্তবায়ন করতে হবে। কিন্তু সিটি করপোরেশন থেকে এখনও এটা নিয়ে ডাকা হয়নি।

তাগিদ নেই খোদ স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের। আনিসুল হকের মৃতুর পরে অবশ্য একটি বৈঠক তারা এ নিয়ে করেছে কিন্তু তার কোন ফলাফল দেখা যায়নি।

৫ রঙের বাস নামানোর পরিকল্পনা জানিয়ে সালেহ উদ্দিন বলেন, ‘এখন যে বাসগুলো চলে তার সবই তুলে ফেলতে হবে। কোম্পানি গঠন করা বাস চালানো হবে। ২২ টি রুটে ৬ কোম্পানির অধীনে চলবে সাড়ে ৪ হাজার বাস।

পাঁচ রঙয়ের এসব বাস তিন ধরণের হবে। একটি ৫২ সিটের, আরেকটি ৪০ থেকে ৪২ সিটের এসি গাড়ি এবং তৃতীয়টি আর্টিকুলেটেড বাস। তবে সাড়ে ৪ হাজার বাসের মধ্যে কোন ডাবল ডেকার থাকবে না। বিভিন্ন কারণে ডাবল ডেকার বাসগুলো ঢাকা শহরের জন্য উপযুক্ত নয় বলে মন্তব্য করেন ড সালেহ্ উদ্দিন আহমেদ।

সালেহ উদ্দিন বলেন, ‘ঈদের আগে সিটি করপোরেশনে প্রধান নির্বাহী একবার ফোন করে বলেছিলেন এটা নিয়ে এগিয়ে যেতে চান কিন্তু পরে বহুবার ফোন করে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে পাওয়া যায়নি।

বিআরটিএ-এর তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে রাজধানীতে ১৯৪টি রুটে প্রায় সাড়ে চার হাজার বাস চলে। এর মধ্যে নিবন্ধিত ২৯ হাজার বাস, সচল রয়েছে মাত্র সাড়ে ৪ হাজার বাস। প্রতিদিন  ১ কোটি যাত্রী চলাচল করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.