ডেস্ক : আফগানিস্তানের কাছে ছেলেদের হারে যখন বাংলাদেশের ক্রিকেট বিষাদে ঢাকা, সেই চাদর উড়িয়ে আনন্দের উপলক্ষ এনে দিল মেয়েরা। এশিয়া কাপে আজ কুয়ালালামপুরে সালমা খাতুনের দল শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে দিয়েছে ৭ উইকেটে, এশিয়া কাপের ফাইনালে ওঠার পথে বড় একটা লাফও দিল। ভারতের বিপক্ষে দশমবারের চেষ্টায় এই প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জয় পেল বাংলাদেশ। রুমানা আহমেদ ও ফারজানা হকের ব্যাটিং অনেক দিন মনে রাখার মতো এক জয় এনে দিল বাংলাদেশকে।

মিতালী রাজদের দল গত বছর বিশ্বকাপে ফাইনাল খেলেছিল, ইংল্যান্ডের কাছে হেরে গিয়েছিল একটুর জন্য। সেই ভারতকেই এবার মাটিতে নামিয়ে আনল মেয়েরা। প্রথম দুই ম্যাচ জিতেছিল বাংলাদেশ, বাংলাদেশ শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে। এরপর পাকিস্তানের সঙ্গে জিতে জয়ের ধারায় ফেরে বাংলাদেশ। তবে ভারতের সঙ্গে এই জয়ে ছাড়িয়ে গেল বাংলাদেশের মেয়েদের সব কৃতিত্বকেই।

শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ১১ রানেই প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ২৬ রানে মিতালি রাজের রানআউটে বড় একটা আনন্দের উপলক্ষ পায় মেয়েরা। এরপর নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে ভারত। হারমানপ্রিত কউর ও দীপিকা শর্মাই শুধু হাল ধরেছিলেন। তবে রুমানার দারুণ বোলিং টেনে ধরে ভারতকে, ২১ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়ে বলতে গেলে একাই আটকে রেখেছেন ভারতকে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৪১ রানের বেশি করতে পারেনি ভারত।

মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে এই রান কম নয়। ২৯ রান তুলতে আয়েশা রহমানকে হারায় বাংলাদেশ। ৪৯ রানের ভিতরে নিগার সুলতানা ও সালমা সুলতানা আউট হওয়ায় খানিকটা বিপদেই পড়ে যায় বাংলাদেশ। সেখান থেকে ফারজানা ও রুমানা আবার পথ দেখান বাংলাদেশ। দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৯৩ রানের জুটিতে ২ বল হাতে রেখেই লক্ষে পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ, মাত্র ৩উইকেট হারিয়েই। ৪৬ বলে ৫২ রান করে অপরাজিত ছিলেন ফারজানা, ৩৪ বলে ৪২ রান করে রুমানাও ছিলেন তাঁর সঙ্গী।

গ্রুপ পর্বে থাইল্যান্ড ও মালয়েশিয়ার সঙ্গে দুইটি ম্যাচ এখন বাকি বাংলাদেশের। এই দুইটি জিতলেই মেয়েরা পৌছে যাবে ফাইনালে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.