আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গুয়েতেমালার ফুয়েগো আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুপাতে অন্তত ২৫ জন নিহত ও প্রায় ৩০০ জন আহত হয়েছে। এছাড়া আগ্নেয়গিরিরি আশপাশের কয়েকটি শহরের দুই সহস্রাধিক লোককে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।
দেশটির রাজধানী গুয়েতেমালা সিটি থেকে প্রায় ৪০ কিমি দক্ষিণ-পশ্চিমের এই আগ্নেয়গিরি থেকে রবিবার অগ্ন্যুপাত শুরু হয় এবং পাথর, কালো ধোঁয়া ও ছাই ছড়িয়ে পড়ছে।
দেশটির ন্যাশনাল ডিজেস্টার ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি (কনরেড) জানিয়েছে, লাভার একটি স্রোতে এল রোদেও গ্রামের ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত করেছে এবং ঘরের ভেতরে থাকা লোকজন দগ্ধ হয়ে মারা গেছে। রাজধানীর লা অরোরা বিমানবন্দর ছাইয়ের কারণে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

দেশটির প্রেসিডেন্ট জিমি মোরালেস বলেছেন, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় জরুরি পদক্ষেপ নেওয়া শুরু করা হয়েছে। আমরা মনে করছি, অগ্ন্যুপাতে অন্তত তিনটি এলাকা বিধ্বস্ত হতে পারে।

স্থানীয় বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ১৯৭৪ সালের পর দেশটিতে এটিই সবচেয়ে বড় অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা।কনরেডের প্রধান সের্হিও কাবানিয়াস স্থানীয় রেডিও স্টেশনকে জানিয়েছেন, লাভার একটি নদী এল রোদেওর দিকে দিক পরিবর্তন করে।
তিনি আরো বলেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে এল রোদেও গ্রামটি লাভার নিচে চাপা পড়েছে আর লাভার কারণে আমরা লা লিবার্তাদ গ্রামেও পৌঁছতে পারছি না। সম্ভবত সেখানেও লোকজন মারা পড়েছে।
গুয়েতেমালা সরকার বলেছে, অগ্ন্যুপাতে দেশটির মোট ১৭ লাখ লোক আক্রান্ত হয়েছে। অগ্ন্যুপাতে নিহতদের মধ্যে কয়েকটি শিশু রয়েছে এবং মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.