ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশের নদীপথগুলো যেন আবার চালু হয়, আমরা সেই পদক্ষেপ নিয়েছি। পদ্মা, মেঘনা, ধলেশ্বরী, ইছামতি- চারটি নদী চলে গেছে মুন্সিগঞ্জের ওপর দিয়ে। এ অঞ্চলের জন্য নদীপথ গুরুত্বপূর্ণ। তাই ড্রেজিং করে নদীর নাব্যতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করা হচ্ছে।

আজ রোববার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে গণভবন থেকে মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রাধীন বিআইডাব্লিউটিএ ও বিআইডাব্লিউটিসি-এর ৪টি প্রকল্পের উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় মুন্সিগঞ্জ-পাটুরিয়া ফেরি সার্ভিস চালু ও নদীর নাব্যতা বৃদ্ধির জন্য নতুন ৪টি ড্রেজার চালুর ঘোষণা দেন তিনি।

মুন্সিগঞ্জের উন্নয়নের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আলুসহ এখানকার অন্যান্য উৎপাদিত ফসলকে কাজে লাগানোর জন্য যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত করা হচ্ছে। পদ্মাসেতু হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের গুরুত্ব আরও বেড়ে যাবে। এদিকে নৌপথগুলো আবারও ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে সচল করা হলে খুব অল্প খরচে পণ্য পরিবহন করা যাবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সরকার গঠনের পর থেকে সার্বিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা ব্যবসা করতে আসিনি, দেশ গড়তে এসেছি। ১৯৭৫-এর পর যেসব সরকার ক্ষমতায় এসেছে, তারা বিভিন্ন সময়ে নিজেদের ক্ষমতা ব্যবহার করে ব্যবসা-বাণিজ্য করেছে।

তিনি অভিযোগ করেন, যে খুলনা শিপইয়ার্ডকে একসময় বিএনপি সরকার পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছিল, আমরা নৌবাহিনীর হাতে তুলে দিয়েছি সেটা। আজ সেখান থেকে যুদ্ধজাহাজ পর্যন্ত তৈরি হচ্ছে। বিএনপি আমলে মোংলা বন্দর বন্ধ করে দিয়েছিল, আমরা তা আবারও চালু করেছি। সুন্দরবনের অনেক নদী খনন করার মাধ্যমে পানিপ্রবাহ বৃদ্ধি করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.