আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। ক্ষমতার অপব্যবহার ও অনৈতিক প্রভাব খাটানোর অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে তাকে এই দণ্ড দেয়া হয়।
পার্কের এই রায় জনস্বার্থের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করে টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়, যা দেশটির ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা।
সাবেক এই প্রেসিডেন্টকে একই সঙ্গে ১৭ মিলিয়ন ডলার জরিমানাও করা হয়। শুক্রবার এই রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। তিনি এক বছর ধরে জেলে রয়েছে।
পার্ক তার বিচার চলাকালেও আদালতে হাজির হননি এবং তিনি ইতোমধ্যেই আদালতের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনেছেন। তিনি তার বিরুদ্ধে আনা সব অবিযোগ অস্বীকার করেছেন।
রায়ে আদালত বলেছে, বান্ধবী চই সুন-সিলের সঙ্গে যোগসাজশে পার্ক স্যামসাং ও লোটের মতো কোম্পানিকে অবৈধ সুবিধা দিয়ে ৭৭ দশমিক ৪ বিলিয়ন উয়ন নিয়েছেন এবং ওই অর্থে চইয়ের নামে দুটি দাতব্য সংস্থা গড়ে তুলেছেন বলে প্রমাণিত হয়েছে।
বিচারক কিম সে উন তার পর্যবেক্ষণে বলেন, পার্ক তার ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিভিন্ন কোম্পানিতে ওই দাতব্য প্রতিষ্ঠানে অর্থ দিতে বাধ্য করেছেন।
পার্কের বিরুদ্ধে ঘুষ ও বলপ্রয়োগসহ ১৮টি অভিযোগ আনা হয়েছে এবং তিনি এর বেশির ভাগেই দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।
দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক স্বৈরশাসক পার্ক চাং হি’র মেয়ে ৬৬ বছর বয়সী পার্ক ২০১৭ সালের মার্চ মাসে ক্ষমতাচ্যুত হন। তার বিরুদ্ধে রাজপথে কয়েকমাসের আন্দোলনের পর তিনি ক্ষমতা ছাড়েন। ক্ষমতা ছাড়ার পরপরই তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং এর পরই থেকেই তিনি কারাগারে আছেন। সূত্র: বিবিসি ও আল জাজিরা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.