ডেস্ক : স্পেন থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের ঘোষণা দেওয়ার মাত্র ৪০ মিনিটের মধ্যেই কাতালোনিয়াতে কেন্দ্রের শাসন জারি করেছে স্পেন সরকার।
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, আজ শুক্রবার কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক পার্লামেন্টে স্বাধীনতার পক্ষে প্রস্তাব পাস হয়েছে।
কাতালোনিয়া আঞ্চলিক পার্লামেন্টে ১৩৫ সদস্যের মধ্যে স্বাধীনতার পক্ষে ৭০ ভোট পড়ে। বিপক্ষে পড়ে ১০ ভোট। পার্লামেন্টের বিরোধী দল এই ভোট বর্জন করে।
বার্তা সংস্থা সিএনএন জানিয়েছে, এর পরপরই মাদ্রিদে স্প্যানিশ পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ সিনেটে কাতালোনিয়াকে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজয়ের নিয়ন্ত্রণে আনার প্রস্তাব পাস করা হয়।
এর আগে, গত ১ অক্টোবর কেন্দ্রের বাধা উপেক্ষা করে গণভোটের আয়োজন করে কাতালোনিয়া পার্লামেন্ট। কাতালান সরকার বলছে, ওই গণভোটে ৪৩ শতাংশ কাতালোনিয়া অংশ নেয়, যাদের ৯০ শতাংশই স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দেয়। কিন্ত স্পেনের সাংবিধানিক আদালত ওই ভোটকে অবৈধ বলে রুল জারি করে।
এদিকে স্পেনের সিনেট দেশটির সংবিধানের ১৫৫ নং অনুচ্ছেদ সচল করার পক্ষে ভোটের আয়োজন করেছে। যাতে বলা হয়, সংকটকালীন সময়ে স্পেনের অখণ্ডতা ধরে রাখতে যেকোনো প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবার সাংবিধানিক বৈধতা রয়েছে ওই অনুচ্ছেদে।
বিবিসি বলছে, গণভোটের ফল মেনে গত ১০ অক্টোবরই স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে সই করেন অঞ্চলিক নেতারা। কিন্তু তাৎক্ষণিকভাবে তা কার্যকর না করে আলোচনার প্রস্তাব দেন কাতালান প্রেসিডেন্ট কার্লোস পুজডেমন্ড।
গত ২১ অক্টোবর কাতালোনিয়া সরকারকে ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী সরকার’ আখ্যা দিয়ে তা বাতিলের পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে স্পেন সরকার। আঞ্চলিক সরকার যাতে স্বাধীনতা ঘোষণা করতে না পরে, সে লক্ষ্যে স্পেনের মন্ত্রিসভা ওই সরকার বাতিলের পক্ষে মত দেয়।
এর আগে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিনো রাজয় সিনেটরদের কাতালানে আইন,গনতন্ত্র ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে সরাসরি শাসন প্রয়োজনের কথা জানিয়েছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.