আজ বুধবার সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত পৃথক দুটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন-অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বৈঠকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, থাইল্যান্ডের প্রতি টন চালের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৬৫ ডলার। দেড় লাখ টন চাল আমদানি করতে মোট খরচ বাংলাদেশি টাকায় ৫৭৮ কোটি ৯২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এলসি খোলার ৯০ দিনের মধ্যে চাল সরবরাহ করা হবে।

তিনি বলেন, জাতীয় উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে ১ লাখ টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল আমদানিতে মোট ব্যয় হবে ৪৩৮ কোটি ২২ লাখ ৪৮ হাজার কোটি টাকা। ৩৮টি লটের মাধ্যমে দেশীয় দুইটি প্রতিষ্ঠান এ চাল সরবরাহ করবে। প্রতিষ্ঠান দুটো হলো- রবিউল ইসলাম ট্রেডার্স ও আইনুল হক ট্রেডার্স।

চলতি বছর বন্যার কারণে প্রায় ২০ লাখ মেট্রিক টন চাল উদৎপাদন কম হওয়ায় খাদ্য ঘাটতি দেখা দেয়। পরে খাদ্য ঘাটতি মেটাতে সরকারিভাবে ১৫ লাখ মেট্রিক টন চাল এবং ৫ লাখ মেট্রিক টন গম আমদানি করার সিদ্ধান্ত নেয় খাদ্য মন্ত্রণালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.