উদ্বাস্তু হয়েছেন কখনো?

 উদ্বাস্তু হয়েছেন কখনো?

সানাউল্লাহ লাবলু : উদ্বাস্তু হয়েছেন কখনো? নিজের ঘর-বাড়ি ফেলে প্রতিবেশি দেশ না হোক, পাশের গ্রাম বা বাড়িতে? ‘৭১-এ কোটি মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে ভারতে আশ্রয় নিয়েছিলেন। আরো কোটি মানুষ শহর ফেলে গ্রাম, নিজের গ্রাম ছেড়ে দূরের গ্রামে আশ্রয় পেয়েছিলেন। আমরাও উদ্বাস্তু হয়েছিলাম, নিজ শহর, নিজ গ্রাম থেকে। তবে আমরা ফিরেছিলাম নিজের ভিটায়। কিন্তু একাত্তুর বা তার আগে-পরের অনেকেই জন্মভিটায় আর কখনো ফিরতে পারেননি।

উদ্বাস্তু শব্দটায় কতোটা গ্লানি আর যন্ত্রণা মিশে আছে? কখন কেউ উদ্বাস্তু হতে বাধ্য হয়? নিজ ভিটা-বাড়ি ফেলে উদ্বাস্তু হওয়া মানুষকে আমৃত্যু তাড়া করে ফিরে পদে পদে অপমান আর অবহেলা।

তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের নির্ভরতার পরম আশ্রয় হয়েছে বাংলাদেশ। রোহিঙ্গারা জানে বাংলাদেশে ঢুকতে পারলে মানবেতর, অনিশ্চিত জীবন হলেও, বেঁচে থাকবে। গুলি, নির্যাতন, আতংক, মৃত্যু তাদের তাড়া করবে না।

গত এক বছরে দু’দুটো রোহিঙ্গা নির্মূল অভিযানে তাই তারা বানের জলের মতো সীমান্ত পেরিয়েছে। এ সংখ্যা এরই মধ্যে তিন লাখ অতিক্রম করেছ।

মানবতার এমন ডাকে আমরা নিরব থাকিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর তার সরকার সীমান্ত খুলে দিয়েছেন। মানবিক হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। কিন্তু এতো সমাধান নয়। এটা রোহিঙ্গাদের জন্য সাময়িক স্বস্তি মাত্র।

উদ্বাস্তুদের নিয়ে এখন সারা দুনিয়া উদ্বিগ্ন। সব প্রধান সংবাদ মাধ্যমের নজরের কেন্দ্রে আছে রোহিঙ্গারা। কিন্তু ক’দিন আর! তারপর নতুন ইস্যুতে মিডিয়া দৃষ্টি ফেরাবে। রোহিঙ্গারা থাকবে আমাদের নিজস্ব সমস্যা হয়ে। আমাদের দূর্বল নজরদারির কারণে তারা ছড়িয়ে যাবে সারা দেশে। দেশের-মানুষের নিরাপত্তার জন্য সমস্যা হয়ে উঠবে।

রোহিঙ্গাদের নিজের ভিটায় ফেরত পাঠানো একটা বড় সমস্যা হয়ে উঠবে। আমাদের কূটনীতি তাই জোরালো করার এখনই সময়। রাখাইন রাজ্যে জাতিসংঘের অধীনে একটা নিরাপত্তা বলয় তৈরি করে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সক্রিয় কূটনীতি এখন সময়ের দাবি। মিয়ানমার এবং তার নেত্রী অং সান সূচি এখন আন্তর্জাতিক চাপের মুখে আছে। তাদের চাপ দেয়া, আন্তর্জাতিক জনমতের কাছে নতজানু করতে বাংলাদেশ সক্রিয় হবে, এটাই প্রত্যাশা।
সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৭

লেখক : জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক, প্রধান নির্বাহী- রঙধনু মিডিয়া লিঃ (লেখাটি লেখকের ফেসবুক পাতা থেকে নেয়া।)

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.