আশুগঞ্জে ৪৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রের উদ্বোধন রোববার

 আশুগঞ্জে ৪৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রের উদ্বোধন রোববার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ এখন দেশের অন্যতম বিদ্যুৎ উৎপাদন হাব। গ্যাসভিত্তিক উচ্চ জ্বালানী দক্ষতার বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে গঠিত আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ উৎপাদন হাব এর বর্তমান উৎপাদন ক্ষমতা ১৮শ মেগাওয়াট ছাড়িয়েছে। আশুগঞ্জ পাওয়া স্টেশন কোম্পানির ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট নামে নতুন একটি ইউনিটের উদ্বোধন রোববার। ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এদিন সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইউনিটটির উদ্বোধন করবেন।

এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের মাঝে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।রঙ্গবেরঙ্গের ব্যানার,ফেস্টুন আর নিশান দিয়ে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর বিভিন্ন এলাকাকে সাজানো হয়েছে নতুন সাজে। আলোকসজ্জা করা হয়েছে পুরো বিদ্যু কেন্দ্র এলাকায়।

বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কারিগরি বিভাগ সূত্রে জানাযায়,২০১৩ সালের ২০ জুলাই আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ উৎপাদন হাব এর ১৩‘শ মেগাওয়াট ক্ষমতা ৪টি ইউনিটের নির্মান প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। আশুগঞ্জ ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট(নর্থ) ইউনিটটি উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে পর্যায়ক্রমে ৪টি ইউনিটই জাতীয় গ্রীডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে। দেশের বৃহৎ বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট(নর্থ) ইউনিটের নির্মান কাজ ২০১৪ সালের ২এপ্রিল শুরু হয়।এডিবি,আইডিবি ও জিওবি ঋন সহায়তায় এবং আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর নিজস্ব তহবিল থেকে ২৫৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩৮ মাসের মধ্যে এই ইউনিটের নির্মান কাজ শেষ করা হয়।এর মধ্যে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিজস্ব তহবিল ছিল প্রায় ৬০ কোটি টাকা। গ্যাস ভিত্তিক এই পাওয়ার প্লান্টটির নির্মান কাজ শেষে চলতি বছরের ১১ জুন থেকে বানিজ্যিক ভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করে।এই ইউনিটের নির্মান কাজ করেছেন স্পেনের টেকনিকাস রিইউনিডাস এবং টিএসকে ইলেক্ট্রনিকা ওয়াই ইলেক্ট্রি সাইডাড এসএ নামে ২টি ঠিাকাদারী প্রতিষ্ঠান।বর্তমানে এই ইউনিট থেকে ৩৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রীডে সরবরাহ করা হচ্ছে।দেশের সার্বিক উৎপাদনের প্রায় ১২.৫০% বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানী দেশের বিদ্যুৎ উৎপাদনে ডিপ্যান্ডেবল ও রিলেয়্যাবল বিদ্যুৎ কেন্দ্র হিসাবে জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে আসছে।

দেশের বিদ্যুৎ সেক্টরে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশনের ৪টি বিদ্যুৎ ইউনিটই উচ্চ জ্বালানী দক্ষতা সম্পন্ন ও অধিক জ্বালানী সাশ্রয়ী।যার সার্বিক গড় দক্ষতা প্রায় ৫৮%।চলমান প্রকল্প গুলো সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সিমেন্স টারবাইন,পূর্ণাঙ্গ ডিসিএস কন্ট্রোল সিস্টেম ও প্লান্ট প্রটেকশনে ব্যবহার করা হয়েছে উচ্চ প্রযুক্তি সম্পন্ন প্রটেকশন সিস্টেম।আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ উৎপাদন হাব এর গড় ট্যারিফ ইউনিট প্রতি ৩ টাকা।

১৯৭০ সালে ১২৮ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ২টি ইউনিট নিয়ে আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের যাত্রা শুরু হয়।বর্তমানে আশুগঞ্জ অন্যতম পাওয়ার হাব এর মোট ১১টি ইউনিটের উৎপাদন ক্ষমতা ১৮‘শ মেগাওয়াট ছাড়িয়েছে।বিদ্যুৎ কেন্দ্র সমুহের গড় দক্ষতা প্রায় ৪০%।অধিক জ্বালানী সা¯্রয়ী আশুগঞ্জ পাওয়ার হাব এ গ্যাস প্রয়োজন হয় গড়ে ২৩০ এমএমসিএফডি।২০২০ সালের মধ্যে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর উৎপাদন ক্ষমতা ২ হাজার মেগাওয়াট ছাড়িয়ে যাবে। এরই অংশ হিসাবে আশুগঞ্জ ৪০০ মেগাওয়াট সিসিপিপি(ইস্ট) নির্মান প্রকল্প ইতোমধ্যে একনেক সভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে।এছাড়া ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন জালানী তেল ভিত্তিক ইউনিট,১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সোলার পাওয়ার প্লান্ট ও ১৩০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কয়লা ভিত্তিক ইউনিট স্থাপনের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।২০৩০ সালের মধ্যে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর উৎপাদন ক্ষমতা ৭ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করার মহা পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে।

আশুগঞ্জ ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট(নর্থ) এর প্রকল্প পরিচালক ক্ষিতিশ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, কম গ্যাস খরচ করে অধিক বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন আশুগঞ্জ ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট(নর্থ) ইউনিটটি আয়ুস্কাল ধরা হয়েছে ২৫ বছর।এই ইউনিটটি উৎপাদনে আসায় জাতীয় গ্রীডে যোগ হয়েছে আরো ৩৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ।এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ট্যারিফ ইউনিট প্রতি ধরা হয়েছে ২টাকা।

আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর নির্বাহি পরিচালক(পরিকল্পনা ও প্রকল্প) প্রকৌশলী আজিত কুমার সরকার জানান আশুগঞ্জ ৪০০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট(নর্থ) উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ৪টি ইউনিটই জাতীয় গ্রীডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে সক্ষম হয়েছে। নির্মান কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে আরো আশুগঞ্জ ৪০০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট(ইস্ট)।এছাড়া ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন জালানী তেল ভিত্তিক একটি ইউনিট,১৩‘শ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কয়লাভিত্তিক পাওয়ার প্লান্ট ও ১‘শ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন সোলার পাওয়ার প্লান্ট স্থাপনের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

আশুগঞ্জ পাওয়া স্টেশন কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালকক প্রকৌশলী সাজ্জাদুর রহমান রবিবার সকালে ঢাকা গনভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশুগঞ্জ ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট ইউনিটের উদ্বোধন করবেন।এউপলক্ষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।নতুন এই বৃহৎ পাওয়ার প্লান্টটি চালুর মধ্য দিয়ে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর ১১টি ইউনিটে উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ১৮‘শ মেগাওয়াট ছড়িয়েছে।২০২০ সালের মধ্যে আশুগঞ্জ পাওয়ার হাব এর উৎপাদন ক্ষমতা ২ হাজার মেগাওয়াট ও ২০৩০ সালের মধ্যে প্রায় ৭ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে।

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.