ডেস্ক: কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে ফের বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ শুরু করেছে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী।

মিয়ানমার ও দেশের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, রাখাইন প্রদেশে মিয়ানমারের সেনা সমাবেশ ঘটানো হয়েছে। যে কোনো সময় নতুন করে অভিযান শুরু হতে পারে। এই আশঙ্কায় গত দু-তিন দিন ধরে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসছে।

আজ বুধবার দেশের একটি দৈনিকের খবরে বলা হয়েছে, লেদা ও কুতুপালংয়ের মিয়ানমারের অনিবন্ধিত নাগরিকদের শিবিরের আশপাশে খোঁজ নিয়ে প্রায় ২০০ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের খবর  সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

তবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এস এম আরিফুল ইসলাম রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের খবর নাকচ করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, গত অক্টোবরের পর যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল, সে তুলনায় এখনকার পরিস্থিতি ভালো। কখনো কখনো অনুপ্রবেশের চেষ্টা হলে তা পুশব্যাক করা হচ্ছে।

তবে উখিয়ার কুতুপালং অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের সভাপতি আবু সিদ্দিক জানান, সেখানে গত দুই দিনে নতুন করে আসা প্রায় ৫০ জন রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে।

এদিকে মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, রাখাইনের উত্তরাঞ্চলে নিরাপত্তা জোরদারের অজুহাতে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাজারখানেক সদস্য গত শুক্রবার রাথিডং, বুথিডং ও মংডুতে মোতায়েন করা হয়েছে। গত সোমবার সেনাবাহিনী মায়ু নদীর আশপাশের পাহাড়ি এলাকা থেকে লোকজনকে সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.