ডেস্ক : ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের মূলধন বর্তমানে ৮ হাজার কোটি টাকা হলেও ভবিষ্যতে এ মূলধনের পরিমাণ ২০ হাজার কোটি টাকা হবে। বর্তমানে ৪০ হাজার সমিতি থাকলেও আগামী বছর এর সংখ্যা ১ লাখে পৌঁছাবে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত জাতীয় স্থানীয় সরকার ইনস্টিটিউট (এনআইএলজি)-র পরিচালনা বোর্ডের ৪৭ তম সভায় এসব কথা বলেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

তিনি বলেন,  ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী ভেবে-চিন্তেই নিয়েছেন। এ প্রকল্প বাংলাদেশের দারিদ্র্য দূর না হওয়া পর্যন্ত চলবে। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে ততদিন ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প থাকবে।

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন , সরকারের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে দেশকে দারিদ্র্যের অভিশাপ হতে মুক্ত করা।এ জন্য জনগণের সঞ্চয় বাড়ানোর বিষয়ে সরকার বদ্ধপরিকর। জনগণকে ঋণগ্রস্ত না রেখে তারা যাতে সঞ্চয় বাড়াতে পারে সে লক্ষ্যে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

মন্ত্রী এনআইএলজি, বার্ড, আরডিএ-কে এই প্রকল্প নিয়ে গবেষণা এবং এর মাধ্যমে এ প্রকল্পকে আরও জনবান্ধব করার উপায় খুঁজে বের করতে বলেন।এছাড়াও এনআইএলজি-র কার্যক্রম আরও গতিশীল করারও নির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন, স্থানীয় সরকারের প্রায় ৬০ হাজার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি রয়েছে। যথাযথভাবে প্রশিক্ষিত করলে এ বিশাল সংখ্যক প্রতিনিধি প্রতিটি অঞ্চলে উন্নয়ন কার্যক্রমে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পারবে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- স্থানীয় সরকার বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব ইকরামুল হক ও এনআইএলজি-এর মহাপরিচালক তপন কুমার কর্মকার সহ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.