ক্রীড়া ডেস্ক :  বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসর শুরু হবে ২ নভেম্বর। তবে এর আগেই ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলো নিজেদের দল গোছাতে শুরু করেছে। তবে এদিক থেকে ব্যতিক্রম ছিল বরিশাল বুলস। কোনো খেলোয়াড়কেই এখনো নিশ্চিত করেনি তারা। অবশেষে জানা গেল এবারের আসরে অংশগ্রহণ করতে পারছে না দলটি। আর্থিক অসঙ্গতির কারণে ও শর্ত লঙ্ঘন করায় পঞ্চম আসরে থাকছে না বুলস। ফলে ৭ দল নিয়েই হবে এবারের বিপিএল। এমনটাই জানিয়েছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা।

বিপিএলের পঞ্চম আসরের আয়োজন নিয়ে বুধবার ঢাকা ক্লাবে আলোচনায় বসে গভর্নিং কাউন্সিল। সেখানে আলোচনা শেষে গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান জানান, ‘বিপিএলের শর্ত লঙ্ঘন করায় এবারের আসরে অংশগ্রহণ করতে পারবে না বরিশাল বুলস। ফলে এবারের আসরটিও আমরা সাত দল নিয়েই আয়োজন করছি। নির্ধারিত সময়ে আসরটি মাঠে গড়াবে।’

কি ধরণের শর্ত ভঙ্গ করেছে দলটি জানতে চাইলে সিনহা বলেন, ‘আপনারা জানেন আমাদের কিছু নিয়ম আছে। টুর্নামেন্ট শুরু আগে নির্ধারিত একটা সময়ে আমাদের একটা ব্যাংক গ্যারান্টি দিতে হয়। যেটা দিয়ে যদি কোনো দল খেলোয়াড়দের পাওনা না দেয় আমরা তা দিয়ে দেই। তারা এটা নির্ধারিত সময়ে দিতে পারেনি তাই তাদের বাদ দিতে বাধ্য হয়েছি।’

শর্ত ভঙ্গ করলেও একেবারে বাদ দেওয়া হচ্ছে না বরিশালকে। এবারের আসর থেকেই বাদ দেওয়া হচ্ছে তাদের। আগামী আসরে নির্ধারিত সময়ে ব্যাংক গ্যারান্টি দিতে পারলে অংশ নিতে পারবে তারা বলে জানান গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান, ‘আমরা তাদের এ আসর থেকে বাদ দিয়েছি। শর্ত পূরণ করতে পারলে পরের আসরে খেলতে পারবে তারা।’

বিপিএলের আসন্ন আসরকে ঘিরে বরিশাল বুলসের বিতর্ক নতুন কিছু নয়। কিছুদিন আগেই বরিশাল বুলসের স্বত্বাধিকারী ও বিসিবির পরিচালক আবদুল আওয়াল ভুলু বাংলাদেশ দলের টেস্ট সংস্করণের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমকে নিয়ে কটূক্তি করেন। তাকে বাজে অধিনায়ক ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী বলেন। মুশফিক যেটি নিয়ে অভিযোগ করেছিলেন বিপিএল কাউন্সিলের কাছে। এরপর গণমাধ্যমে নিজের ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চান বুলসের ভুলু।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.