ডেস্ক :  দেশের বিভিন্ন জেলায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে বিভিন্ন অপরাধে ৭১টি প্রতিষ্টানকে ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার এ অভিযান পরিচালনা করা হয় বলে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক রিনা বেগমের স্বক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পণ্য তৈরি, পণ্যের মোড়কে এমআরপি লেখা না থাকা, ওজনে কারচুপি, খাদ্য পণ্যে নিষিদ্ধ দ্রব্যের মিশ্রণ, প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করা, ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয় এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বা ঔষধ বিক্রয়ের অপরাধে জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়।

আজ সারা দেশের ১৯টি বাজার তদারকি ও ৯টি লিখিত অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে ৭১টি প্রতিষ্ঠানকে ৩ লাখ ৩০ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়। আদায়কৃত জরিমানা হতে ৯ জন অভিযোগকারীকে ১১ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

দেশব্যাপি ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ১৯ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে বাজার তদারকি এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। জেলা গুলো হলো-নরসিংদী, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, শরীয়তপুর, মুন্সীগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, বগুড়া, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি, ঝিনাইদহ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, কক্সবাজার, কুমিল্লা, মৌলভীবাজার, ফেনী ও ব্রাক্ষ্মণবাড়ীয়া।

নরসিংদী জেলার সদর উপজেলায় ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১১ হাজার টাকা, ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট উপজেলার ৯টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৫ হাজার টাকা, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ৪টি প্রতিষ্ঠানকে ৯ হাজার টাকা, শরীয়তপুর সদরের ১টি প্রতিষ্ঠানকে ২ হাজার ৫০০ টাকা, মুন্সীগঞ্জের টুঙ্গীবাড়ীর ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৭ হাজার টাকা এবং মানিকগঞ্জের সিংগাইলের ২টি প্রতিষ্ঠানকে ১৭ হাজার টাকাসহ মোট ১ লাখ ১১ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

বগুড়া সদরের ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৭ হাজার ৫০০ টাকা, বরিশালের বাকেরগঞ্জের ৭টি প্রতিষ্ঠানকে ১৭ হাজার টাকা, ভোলা সদরের ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ১২ হাজার টাকা, পটুয়াখালী সদর উপজেলার ২টি প্রতিষ্ঠানকে ৬ হাজার টাকা, ঝালকাঠির রাজাপুরের ১টি প্রতিষ্ঠানকে ৬ হাজার টাকা, ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ২টি প্রতিষ্ঠানকে ১২ হাজার টাকা, চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরের ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৫১ হাজার টাকা, কক্সবাজারের রামুর ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১২ হাজার টাকা, কুমিল্লার সদরের ১টি প্রতিষ্ঠানকে ১ হাজার টাকা, মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৭ হাজার ৫০০ টাকা, ফেনীর ছাগলনাইয়ার ৪টি প্রতিষ্ঠানকে ২৭ হাজার টাকা, ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আখাউড়ার ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ১৬ হাজার টাকাসহ ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়া অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে অভিযোগ শুনানীর মাধ্যমে ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয়ের অপরাধে ইয়োলো ক্যাফেকে ৬ হাজার টাকা, প্রতিশ্রুত পণ্য যথাযথভাবে বিক্রয় না করার অপরাধে বাটা মেঘা সিটি স্টোরকে ১৫ হাজার টাকাসহ ২১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে ৩ জন অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ৫ হাজার ২৫০ টাকা প্রদান করা হয়।

ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ে অভিযোগ শুনানীর মাধ্যমে ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয়ের অপরাধে ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা ৪ জন অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ৩ হাজার ২৫০ টাকা প্রদান করা হয়।

খুলনা জেলা কার্যালয়ে অভিযোগ শুনানীর মাধ্যমে ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয়ের অপরাধে রাধুনী কাবাব ঘরকে ২ হাজার টাকা জরিমানা ও ১ জন অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ৫০০ টাকা প্রদান করা হয়।

সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ে অভিযোগ শুনানীর মাধ্যমে ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রয়ের অপরাধে সুখতারা ন্যাচার রিট্রিট লিমিটেডকে ৮ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও ১ জন অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ২ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

এছাড়া গত ৬ আগষ্টের একটি অভিযোগ শুনানীর মাধ্যমে স্বপ্ন কাজলাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও ১ জন অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫ শতাংশ হিসেবে ২ হাজার ৫০০ টাকা প্রদান করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.