নিজস্ব প্রতিবেদক : ডুইং বিজনেস বা ব্যবসা সহজিকরণে সিঙ্গাপুর, নিউজিল্যান্ড যে পলিসি চর্চা করে বাংলাদেশও সেই পলিসি অনুসরণ করতে চায়। এই পলিসি অনুসরণ করলে দেশে আরও বিদেশি বিনিয়োগ হতে পারে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ।

বাংলাদেশি ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলের সিঙ্গাপুর সফর নিয়ে আজ মঙ্গলবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য তুলে ধরেন। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সিঙ্গাপুর সফর নিয়ে তিনি বলেন, মূলত জাপান ও বাংলাদেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করার জন্য গত বছর জাপানের সেরা কোম্পানিগুলোর প্রধান নির্বাহীদের সাথে একটা প্রোগাম করার কথা ছিল। কিন্তু গুলশানের হলি আর্টিজানে দুঃখজনক ঘটনার পর সেটা আর করা সম্ভব হয়নি। এবার সিঙ্গাপুরে বসে সেই প্রোগাম করা সম্ভব হয়েছে।এসডিজি সমন্বয়ক বলেন, ডুইং বিজনেসে সিঙ্গাপুর ও নিউজিল্যান্ড হলো পৃথিবী সেরা। আমরা সিঙ্গাপুর থেকে ডুইং বিজনেসের সেরা চর্চা সম্পর্কে জেনে বুঝে এসেছি; যা বাংলাদেশে আরও বিদেশি প্রত্যক্ষ বিনিয়োগ-এফডিআই আনতে সহায়ক হবে।

তিনি বলেন, আমরা সিঙ্গাপুরে ব্যবসা নিয়ে নানাভাবে পর্যালোচনা করেছি। আমরা দেখেছি কোম্পানির ফি নির্ধারণ করা হয় ফ্লাট রেট অনুসারে; যেখানে বাংলাদেশে কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন অনুসারে করা হয়।

আবার বাংলাদেশে কোনো কোম্পানি এজিএম করতে না পারলে হাইকোর্টের অনুমতি নিতে হয়। সেখানে আবার এমন পদ্ধতি অনুসরণ করা হয় না।

আমরা ট্যাক্স, ডুইং বিজনেস এবং ব্যবসার অনূকুল পরিবেশ বিষয়গুলো সফলভাবে তুলে ধরেছি।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি আবুল কাশেম বলেন, আশিয়ানভুক্ত ৬টি দেশে জাপানের প্রতি বছরে বিনিয়োগ ২০ বিলিয়ন ডলার। ওইসব দেশে শ্রমিকের মজুরি ৬ শতাংশ হারে বাড়ছে। যা নিয়ে ব্যবসায়ীরা উদ্বিগ্ন। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ এই সুযোগ কাজে লাগাতে পারে। এই ২০ বিলিয়নের মধ্যে ১০ শতাংশ বা ২ বিলিয়ন বিনিয়োগ যদি আসে তবে অনেক বড় ব্যাপার হবে বাংলাদেশের জন্য।

তিনি বলেন, আমরা সেখানে তাদের বুঝাতে সক্ষম হয়েছি। বাংলাদেশে ব্যবসায়িক পরিবেশ ভালো। বিশেষ করে হলি আর্টিজেন ঘটনার পর জাপানের ব্যবসায়ীদের যে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছিল; তা কাটিয়ে ওঠার প্রথম ধাপ সফলভাবে আমরা অতিক্রম করতে পেরেছি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিডা নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে অনেক এগিয়ে গেছে। বাংলাদেশের সাথে জাপানের ব্যবসায়িক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে যাওয়ার জন্য সিঙ্গাপুরের প্রোগাম সফল হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে বিডা চেয়ারম্যান বলেন, গত বছর সারা পৃথিবীতে ১৪ শতাংশ এফডিআই কমেছে। সেখানে বাংলাদেশের এফডিআই ৪ শতাংশ বেড়েছে। তাই বাংলাদেশের এফডিআই শক্ত অবস্থানে রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

এসময় চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলমও বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.