ডেস্ক: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। বুধবার (২১ জুন) বেলা ১১টার দিকে চট্টগ্রাম অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল মেজিস্ট্রেট আ স ম শহীদুল্লাহ’র আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলাটি করেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এনামুল হক।
মামলায় ২৬ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরও ২৫-৩০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে তা পরবর্তীতে আদেশ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আজ সকালে (বুধবার বেলা ১১টার দিকে) আমাদের আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম আহ্বায়ক সাবেক জেলা পিপি এনামুল হক বাদী হয়ে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।’
এজাহারে উল্লেখ করা আসামিরা হলেন, ১. মো. সরওয়ার (৩৩), পিতা- বশির আহাম্মেদ (মৃত), বাড়ি-উত্তর ঘাটচেক; ২. নাজিম উদ্দিন বাদশা (৩০), পিতা-মকবুল হোসেন, জয়নগর, পাদুয়া; ৩. মো. রাসেল ওরফে রাশু (২৬), পিতা- মো. গফুর, ইছাখালী; ৪. মো. মহসিন (২৮), পিতা- দুলা মিয়া, ইছাখালী; ৫. মো. জাহেদ (৩০), পিতা- আহমদ হোসেন, দক্ষিণ ঘাটচেক; ৬. মো. জাহেদ (২৭), পিতা-লম্বা বদি, রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা; ৭. আলমগীর (২৮), পিতা-সামশুল আলম, মিনাজির টিলা, শিলক;  ৮. নঈমুল ইসলাম (২৭), পিতা-মফিজুল ইসলাম, মুরাদনগর; ৯. শিমুল গুপ্ত (২৫), চন্দ্রঘোনা; ১০. পাভেল বড়ুয়া (৩০), পিতা-কেবলা বড়ুয়া, সৈয়দ বাড়ি; ১১. ইকবাল হোসেন বাবলু (২৮), চন্দ্রঘোনা, বনগ্রাম; ১২. মাহিন (২৫), পিতা- বদ্দ্যা সওদাগর, মুরাদনগর; ১৩. মো. ইউনুছ (৩৫), পেট্টু বাদশা সরফভাটা; ১৪. শাসশুদ্দোহা সিকদার আরজু (৪২), পিতা- বুলু সিকদার, সৈয়দ বাড়ি; ১৫. আবু তৈয়ব (৩৪), পিতা-নজরুল ইসলাম (মৃত), ১৬. এনামুল হক (৩৩), পিতা-মৃত হাজী আনোয়ার, ইছাখালী; ১৭. মো. রাসেল (৩০), পিতা-মোবারক হোসেন, ইছাখালী পৌরসভা, ১৮. সাইফুল (২৮), পিতা-ভত সওদাগর, মুরদনগর; ১৯. মাহবুব (২৬), পিতা দুলু মিয়া, পূর্ব সরফভাটা; ২০. আনোয়ার (২৭), পিতা-আহমদ ছবির, মধ্যম সরফভাটা; ২১. নেছার উল্লাহ (২২), পিতা-আমির হামজা, দক্ষিণ সরফভাটা; ২২. বেলাল (৩২), পিতা আব্দুছ ছালাম, পশ্চিম সরফভাটা; ২৩. মুজাহিদ (২৮) পিতা-মাস্টার নূর ইসলাম, পশ্চিম সরফভাটা; ২৪. বাপ্পা (২৭), পিতা-আবদুল কাদের, ২৫. চন্দ্রঘোনা, মো. হারুন (২৮) পিতা- আহমদর রহমান, চন্দ্রঘোনা; ২৬. জাহাঙ্গীর আলম বাদশা (৪৮), পিতা-মৃত মুন্সী মিয়া, পদুয়া।
উল্লেখ্য, পাহাড় ধসে রাঙামাটির বিধ্বস্ত জনপদ ও মাটিচাপায় হতাহতদের দেখতে রবিবার (১৮ জুন) সকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে দলের কেন্দ্রীয় টিম রাঙামাটি যাওয়ার পথে রাঙ্গুনিয়ায় ইসাখালী এলাকায় হামলার শিকার হন। গাড়িবহরের পথ আটকে রড ও পাথর দিয়ে হামলা চালানো হয়। এতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী, বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) মাহবুবের রহমান শামীম, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মীর ফাওয়াজ হোসেন শুভ, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বকরসহ ১৫ জন আহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.