ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সাপ্তাহিক সাময়িকী ‘দ্য ইকোনমিস্ট’ ভুলভাবে উপস্থাপন করেছে বলে মন্তব্য বাংলাদেশ সরকার।মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ মন্তব্য করা হয়েছে।

গত ৩ জুন শানিবার ‘শেখ হাসিনাস ফোলি’ এই শিরোনামে একটি নিবন্ধ প্রকাশ করে দ্য ইকোনমিস্ট।

এর প্রতিবাদে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘প্রো-মুসলিম’ তথা ইসলামপন্থী বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করেনি সাময়িকীটি। ‘প্রধানমন্ত্রী একজন মুসলিম হওয়ার পরও তিনি ও তাঁর সরকার গর্বিত সেক্যুলার এবং মাদ্রাসার মুসলিম শিক্ষার্থীদের সহিষ্ণু, গণতান্ত্রিক মূলধারায় নিয়ে আসার প্রচেষ্টাকে সমর্থন দিচ্ছে।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ‘রাজনৈতিক বিরোধীদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার অভিলাষ নেই তার (প্রধানমন্ত্রীর)। বাংলাদেশ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বোমাবাজির মতো জঘন্য কাজে সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেলে, কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা।’

‘শেখ হাসিনার সর্বনাশা ভুল : বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী দুঃশাসন আড়াল করতে ধর্মকে কাজে লাগাচ্ছেন’ শিরোনামে নিবন্ধটিতে বলা হয়, ‘শেখ হাসিনা ওয়াজেদ নানাভাবে গণতন্ত্রকে ক্ষতবিক্ষত করছেন। তিনি তাঁর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বৈরিতা বজায় রাখতে মত দিয়েছেন।

তিনি তাঁর বিরোধী যেকোনো বিখ্যাত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে বিপর্যস্ত করছেন। ক্ষুদ্রঋণের পথিকৃৎ মুহম্মদ ইউনূস থেকে শুরু করে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ইসলামী ব্যাংকের ক্ষতিও করছেন। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার দুঃশাসন আড়াল করতে ধর্মকে ব্যবহার করছেন বলে মন্তব্য করে পত্রিকাটি মন্তব্য করে লিখেছিল, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী তার প্রতিদ্বন্দ্বীর প্রতি বৈরিতা বজায় রাখতে মত দিচ্ছেন।

এই প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানিয়ে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশনও একটি প্রতিবাদ পাঠিয়েছে বলেও জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.