নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার ভেবেছে ভালো নেতাকর্মীদের শেষ করে দিতে পারলেই বিএনপি দুর্বল ও ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই আমাদের নেতাকর্মীদের গুম-খুন করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় বাহিনীর পরিচয় দিয়ে ঘর থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে তাদেরকে গুম করে ফেলা হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে- যাতে করে তারা একদিন ফিরে আসে।

তিনি বলেন, এই জালেম সরকার বিদায় হলে আমরা তাদের ফিরে পাব- এই আশায় আছি। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীর পরিবারের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন,‘ একটি পরিবারকে বিদায় করে দিতে পারলেই গুমের শিকাররা ফিরে আসবে। সেই ব্যবস্থা সবাই মিলে করতে হবে।’

খালেদা জিয়া বলেন, যারা গুম হয়েছে তারা শুধু আপনাদের ছেলে নয়, আমাদেরও সন্তানের মতো। তারা বিএনপির হয়ে ভালো কাজ করত। এ জন্যই তাদেরকে তাদের গুম করা হয়েছে।

রাজধানীর হোটেল লেকশোরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় খুন-গুমের শিকার হওয়া বিএনপির নেতাকর্মীদের স্বজনদের নিয়ে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খালেদা জিয়া এ সব কথা বলেন।

এর আগে, খালেদা জিয়া গুম ও খুনের শিকার বিএনপি নেতাকর্মীর স্বজনদের হাতে ঈদ উপহার তুলে দেন। প্রায় ৫৫টি পরিবারকে ঈদ উপহার দেওয়া হয় বলে জানান বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল।

এ ছাড়াও বক্তব্য দেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিগত আন্দোলনের সময় প্রায় তিন মাস গুম থাকা ছাত্রদল নেতা আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, নিহত ছাত্রদল নেতা নরুজ্জামান জনির স্ত্রী মনিয়া পারভিন, নিখোঁজ ছাত্রদল নেতা নুরুল ইসলাম নুরুর শিশু কন্যা উম্মে হাবীবা মীম, নিখোঁজ সাজ্জাদুল ইসলাম সুমনের বোন মোছা. আঁখি।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে মূল মঞ্চে ইফতার করেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, নিখোঁজ বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলীর স্ত্রী চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসীনা রুশদি লোনা, নিখোঁজ ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপি নেতা সাজেদুল ইসলাম সুমনের মাতা হাজেরা খাতুন, নিখোঁজ এস এম আদদান চৌধুরীর বাবা রুহুল আমিন চৌধূরী, নিখোঁজ ঝিকরগাছা বিএনপি নেতা নাজমুল ইসলামের স্ত্রী সাবেরা নাজনিন, নিখোঁজ চট্টগ্রাম রাউজান বিএনপি নেতা নুরুল আলম নুরুর স্ত্রী সুমি আক্তার, নিখোঁজ সবুজবাগ থানা ছাত্রদল নেতা মাহবুবুর রহমান সুজনের মা রাশিদা বেগম, নিখোঁজ বংশাল থানা ছাত্রদল নেতা মো জহিরের মা হোসনে আরা।

উল্লেখ্য, প্রথম রমজানে খালেদা জিয়া এতিম ও ওলামা মাশায়েখদের সঙ্গে রাজধানীর ইস্কাটনে লেডিস ক্লাবে ইফতার করেন। গুম ও খুনের শিকার দলের নেতাকর্মীর স্বজনদের সাথে ইফতারের মধ্য দিয়ে তিনি এ রমজানের ইফতার পার্টি শেষ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.