ঈদের দিনের সাজ ও পার্লার

 ঈদের দিনের সাজ ও পার্লার

ডেস্ক : আর কয়েকদিন বাদেই ঈদ। ঈদ সবার জন্যই একটু স্পেশাল। ঈদে যেমন আনন্দ আছে, তেমনি রয়েছে ভীষণ ব্যস্ততা তারমধ্যেওে ঈদের দিনে সবাই চায় নিজেকে একটু স্পেশাল করে রাখতে। ঈদে নিজেকে আকর্ষণীয় দেখাতে অনেকে এখন থেকেই শুরু করেছেন রূপচর্চার। আবার কেউ কেউ সময়ের অভাবে ছুটছেন পার্লারে, যেনো ভিড় বেড়ে যাওয়ার আগেই নিজের মনের মতো সাজের প্রস্তুতি নেওয়া সহজ হয়।

তাই এত ব্যস্ততা সামলে কী করে নিজেকে অন্যদের থেকে একটু আলাদা রাখবেন তাই জেনে নিই-

ঈদের দিনের সাজ:

১. ঈদের দিন খুব বেশি মেকআপ না করাই ভালো।

২. সকালের দিকে মুখের সাজ হালকা রাখলেই ভালো, সেইসাথে চোখগুলো একটু আকর্ষণীয় করে সাজাতে পারেন। চোখে গাঢ় কাজল দিতে পারেন। চাইলে চোখের উপরে আপনার জামার সাথে মিলিয়ে আইলাইনারও ব্যবহার করতে পারেন।

৩. কাজল দেয়ার পর চোখে মাসকারা অথবা আইলাইনার ব্যবহার করতে পারেন।

৪. আপনার ঠোঁটের রং অনুযায়ী লিপস্টিকের শেড একটু গাঢ় কিংবা হাল্কা করতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে সঠিক লিপস্টিক বেছে নেওয়াই ভালো।

৫. দিনের সাজে খুব বেশি ফাউন্ডেশন না দেওয়াই ভালো। অন্যদিকে কেউ যদি ব্লাসন দিতেও চান তবে অন্য কালার বা গাঢ় কালার না দিয়ে হালকা গোলাপি রংই ব্যবহার করুন।

৬. যেহেতু খুব হালকাই সাজ হবে তাই গয়না একটু ভারি হলে চেহারাটা বেশ ফুটে উঠবে। অনেকেই সকালের দিকে শাড়ি পরতে পছন্দ করেন, তাই তার সঙ্গে সোনার গয়না ভালো মানাবে। তবে সালোয়ার-কামিজ বা অন্য পোশাকের সঙ্গে সোনার গয়না না পরাই ভালো। তবে এর পরিবর্তে রুপা বা মুক্তার গয়না পরতে পারেন। সাথে ছোট একটা টিপ হলে বেশ মানিয়ে যাবে।

৭. চুল সাজাতে পারেন নিজের পছন্দ অনুযায়ী, যাদের সোজা চুল তারা মেশিন দিয়ে চুল কিছুটা কোঁকড়া করে নিতে পারেন। আবার চাইলে হাফ-পনি করেও চুল বাঁধতে পারেন।  যাদের হালকা কোঁকড়ানো চুল হলে তারাও মেশিনের মাধ্যমে চুলগুলো সোজা করে নিতে পারেন।

অনেকেই চাইলে আয়রনও করতে পারেন। সেক্ষেত্রে চুল কম হলে একটু ঘনও লাগবে আর চেহারাতেও আসবে অন্য রকম লুক।

ঈদে পার্লারে যাওয়া

ঈদকে কেন্দ্র করে এখন রাজধানীর নামদামি পার্লার ছাড়াও অলিগলিতে অবস্থিত পার্লারগুলোতেও দেখা যাচ্ছে উপচে পড়া ভিড়। ঈদের কেনাকাটার সাথে সারাদিন রোযা রেখে ইফতারের পরেই তরুণীরা ছুটছেন বিউটি পার্লারের দিকে। বিশেষ দিনে নিজেকে আরও একটু বিশেষ সাজে সাজাতেই এ ঘাম ঝরানো। এবার আসা যাক পার্লারে গিয়ে কি ধরনের কাজ বা সাজ নেবেন।

অনেকেই পার্লারে গেলে ঠিক বুঝে উঠতে পারেনা সে আসলে কোন কাজটি করাবে। যারা এখনও পার্লারে যেতে পারেন নি তাদের জন্য আজকের এ আয়োজন।

পার্লারে গিয়ে যে সকল সাজ বা কাজ করাতে পারেন তার মধ্যে হল- ভ্রু প্লাক, আপার লিপ, ফুল ফ্রেম থ্রেডিং, হেয়ারস্টাইল, বিভিন্ন রকম ফেসিয়াল, চুল রিবন্ডিং, চুলের হাইলাইট, হেয়ার ফ্যাশন, হেয়ার স্পা ট্রিটমেন্ট, মেনিকউর, পেডিকিউর, থ্রেডিং ইত্যাদি। থ্রেডিংয়ের মধ্যে রয়েছে- ব্লিচ, হোয়াইটেনিং পলিশ ও মিনি পেডিকিউর ।

তবে অনেকেরই ফেসিয়ালের প্রতি ঝোঁক রয়েছে। যাদের মুখ বা ত্বকে ব্রণ বা মেসতার দাগ রয়েছে তাদের মধ্যে এ প্রবণতা বেশি। এ ক্ষেত্রে পার্লারেই থাকে বিশেষ কিছু সেবা যার মধ্যে রয়েছে- ক্লিনিং, অ্যালোভেরা, হারবাল হোয়াইটিনিং, হারবাল গ্রিন ফেসিয়াল, পলিশিং ফেসিয়াল, হলিউড স্টাইল ফেসিয়াল, হারবাল এ্যারোমা ফেসিয়াল, মেডিকেটেড ফেসিয়াল, এ্যাকনি ফেসিয়াল ও গোল্ড ফেসিয়াল।

আজকাল ছেলেদের জন্যও রয়েছে জেন্টস পার্লার। সেখানে তাদের ত্বকের যত্ন বা চুলের শ্যাম্পু করানো থেকে নানান ধরনের ফেসিয়ালও করা হয়।

রূপ বিকাশে ও তরুণীদের  জন্য রয়েছে নানান ধরনের হেয়ার কাট। তারমধ্যে  হচ্ছে, স্টেপ কাট, স্টেপ লেয়ার, ফিস কাট, সেকিং কাট রেজার কাট, ভলিউম কাট, ফ্রিনজেস কাট, লেয়ার্ড ব্যাঙ্গস কাট ও মিড লেন্থ ইত্যাদি। তবে এ ব্যাপারে ছোটদের পাশাপাশি ছেলেরাও কম যায় না। ঈদকে কেন্দ্র করে সবার মধ্যেই একটা অন্যরকম আনন্দ বিরাজ করে।

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.