ডেস্ক : নতুন কেনার পর এক যুগ নির্বিঘেœ চলার কথা থাকলেও ৪-৫ বছরেই প্রায় অকেজো হয়ে পড়ছে বিআরটিসি বাস। সারা বছর অযতœ-অবহেলায় ডিপোতে পড়ে থাকার পর ঈদ এলেই শুরু হয় মেরামতের কাজ।

সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বহীনতা ও জবাবদিহিতার অভাবেই এ অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

রাজধানীর মতিঝিলে বিআরটিসির বাস ডিপো। দিনরাত ব্যস্ত শ্রমিকরা। ঈদের আগেই শেষ করতে হবে মেরামতের কাজ। দিতে হবে নতুন রূপ। শুধু মতিঝিল নয়, কল্যাণপুর, মোহাম্মদপুর, মিরপুর ও গাবতলী ডিপোতে চলছে জরাজীর্ণ বাস সংস্কারের কাজ।

ঈদের চাপ সামাল দিতে নতুন চারটি রুটসহ দূরপাল্লার যাত্রী পরিবহণে নামছে বিআরটিসির অন্তত পাঁচশ গাড়ি। একারণেই ডিপোর এই কর্মব্যস্ততা, বলছেন এক কর্মকর্তা।

অথচ বাস তদারকিতে সব ডিপোতেই আছেন পর্যাপ্ত কর্মী। সারা বছর ধরে অযতেœ জরাজীর্ণ হলেও ঈদ এলেই শুরু হয় তোড়জোড়। ঈদ যাত্রায় কতটা নিরাপদ এই বাস, সে প্রশ্নে উত্তর দিচ্ছেন এক পরিবহন বিশেষজ্ঞ।

সড়ক ও পরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, কেনার পর এক যুগ নির্বিঘেœ চলার কথা থাকলেও কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতা ও জবাবদিহিতার অভাবেই এসব বাস চার বছরও ঠিকঠাক সেবা দিচ্ছে না।
তথ্যসূত্র : ইনডিপেনডেন্ট টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.