নিজস্ব প্রতিবেদক : মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে দেশে বৃষ্টি ও ঝড়ের প্রকোপ বাড়ছে। গরমে বৃষ্টি কাঙ্খিত হলেও বিগত কিছুদিনের বৃষ্টির প্রভাবে বজ্রপাত, ভূমিধ্বস সহ নানা দুযোর্গে প্রানহানি হয়েছে অনেকের। এছাড়া অতিবৃষ্টিতে হাওর অঞ্চলে বিস্তৃত ক্ষেতের ফসল তলিয়ে গিয়ে ব্যপক ক্ষতি হয়েছে।

সোমবার সকাল থেকেই মানুষের ব্যস্ততা থমকে যায় বৃষ্টিতে। সেই সঙ্গে যানজটের কারণে গাড়ির চাকাও থেমে যায়। অফিসমুখি পথচারিরা পরেন চরম বিপদে। ঢাকায় সোমবার ৪৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এদিকে শুক্রবার ঈদের কেনাকাটার চাপ বাড়লেও শনিবার থেকেই থেমে থেমে বৃষ্টি থাকায় ঈদের কেনাকাটায়ও ভাটা পড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যাবসায়ীরা। বিশেষ করে রাজধানীর ফুটপাতে যারা ব্যাবসা করেন তাদের ব্যাবসা প্রায় বন্ধই রাখতে হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে আগামী ২৪ ঘণ্টা দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ পরিস্থিতি ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত বর্ধিত হতে পারে।

আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থা সম্পর্কে বলা হয়, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে, যা উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যস্ত বিস্তৃত। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

পাহাড়ধস

সম্প্রতি দেশের ভয়াবহতম পাহাড়ধসে দেড়’শর ও বেশি মানুষ নিহত হয়। গত সোমবার শুধু রাঙামাটিতেই পাহাড়ধসে প্রাণ হারায় ১১৫ জন। এই এলাকাগুলোয় অন্তত শ দেড়েক বাড়িঘর নষ্ট হয় বলে জানা গেছে। ‘যেসব বাড়ি পাহাড়ধসে নষ্ট হয়েছে, এর মধ্যে ৫ শতাংশও বৈধ স্থাপনা নয় বলেও জানা গেছে।

বজ্রপাত

এদিকে সোমারের বৃষ্টির সময় মাগুরায় দুই কৃসক বজ্রপাতে নিহত হয়েছে। রোববার সারাদেশে বজ্রপাতে ১১ জন নিহত হয়েছে। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন জলবায়ুর বিরুপ প্রভাবে বজ্রপাতের পরিমান বাড়ছে। যে হারে পরিবেশ বিপর্যয় হচ্ছে তাতে বজ্রপাতের পরিমান আরও বাড়বে বলে জানিয়েছে বিশেষজ্ঞরা।

ফসলহানি

এর আগে সিলেট-সুনামগঞ্জের বন্যায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। হাওর এলাকাকে ধানের ভান্ডার বলা হয়। সেই ভান্ডার এবার শূন্য। এবার ১৪২টি হাওরে ২ লাখ ২৪ হাজার হেক্টরে বোরোর আবাদ করা হয়। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৯ লাখ ৩০ হাজার টন ধান। এই ধান এবার পাওয়া যাচ্ছে না।

চালের এই ঘাটতির প্রভাবে বাজাওে চালের দাম ইতিমধ্যেই বেড়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.