নিজস্ব প্রতিবেদক : সাংবাদিক সমাজের ঐক্যই পারে সমাজের শোষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের প্রতিরোধ গড়ে তোলতে। এ লক্ষ্যে গণমাধ্যমকর্মীদের নিষ্ঠার সঙ্গে পেশাগত দায়িত্ব পালন করার আহ্বান জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। রবিবার রাজধানীর জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ মিলনায়তনে ঢাকাস্থ মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর সাংবাদিক ফোরামের নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক ও ইফতার মাহ্ফিলে এই মন্তব্য করেন তারা।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব ওমর ফারুক বলেন, নবম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়নের নামে বিভিন্ন ঘোষণা দিয়ে লাভ নেই। অবিলম্বে গণমাধ্যম কর্মীদের রুটি-রুজির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নবম ওয়েজবোর্ড পূর্ণাঙ্গভাবে গঠন করতে হবে। তিনি আরো বলেন, সাংবাদিক কল্যান ট্রাস্টের মাধ্যমে জেলা ও উপজেলার সাংবাদিকরাও সরকারী সহায়তা তহবিলের অর্থ পেয়ে আসছে। আগামী ঈদুল ফিতরের আগেই গণমাধ্যমকর্মীদের বেতন ও বোনাস পরিশোধের জন্য মালিকপক্ষের প্রতি তিনি দাবি জানান।
সংগঠনের সভাপতি রাজু আহমেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর খান বাবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা গোলাম সারোয়ার কবীর, সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি আরিফ সোহেল, সহ-সভাপতি নূরে জান্নাত আক্তার সীমা, সাংগঠনিক সম্পাদক আরাফাত মুন্না, অর্থ সম্পাদক হাসান আরিফ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পঙ্কজ কর্মকার, কার্যনির্বাহী সদস্য মিল্টন আনোয়ার, শাহাদাৎ রানা, মহিউদ্দিন ফারুক, শাহ আলম খান।
এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন, বিক্রমপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মাসুদ খান, সিরাজদিখান প্রেসক্লাবের সভাপতি ইমতিয়াজ উদ্দিন বাবুল, টংগিবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, শ্রীনগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন প্রমূখ।
এদিকে অনুষ্ঠানের শুরুতেই মুন্সীগঞ্জ বিক্রমপুর সাংবাদিক ফোরামের অভিষেক ও ইফতার মাহফিলে নেতৃবৃন্দকে শুভেচ্ছ জানাতে ছুটে আসেন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, বিএফইউজের সাবেক অর্থ সম্পাদক আতাউর রহমান ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ জামাল, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি রাসেল মাহমুদ, বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতির কোষাধক্ষ্য সুদীপ্ত আহমেদ প্রমূখ।
অভিষেক ও ইফতার মাহ্ফিলকে কেন্দ্র করে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ মিলনায়তন মুন্সীগঞ্জ জেলার সাংবাদিকদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছিল। মুন্সীগঞ্জ জেলা ও বিভিন্ন উপজেলা এবং রাজধানীতে কর্মরত সাংবাদিকরা এই মিলনমেলায় যোগ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.