ভৈরব [কিশোরগঞ্জ] প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের ভৈরবে আশরাফুল আলম নামে এক সাংবাদিক দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়েছেন। এর প্রতিবাদে আজ রোববার দুপুরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছেন স্থানীয় সাংবাদিকরা। দুপুর ১২টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড দুর্জয় মোড় এলাকায় এই কর্মসূচি পালিত হয়। ঘণ্টাব্যাপী চলা ওই মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভা থেকে দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির মুখোমুখি দাঁড় করাতে স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান সাংবাদিক নেতারা। অন্যথায় পরবর্তীতে আরও কঠোর কর্মসূচি পালনে তারা বাধ্য হবেন বলে প্রতিবাদ সভায় জানান তারা।

মানবন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন দৈনিক পূর্বকণ্ঠের সম্পাদক-প্রকাশক সৈয়দ সোহেল সাশ্রু, রিপোর্টাস ক্লাব ও ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আলাল উদ্দিন, ৭১ টিভির প্রতিনিধি মো: ফজলুর রহমান বাবু, এশিয়ান টিভির আলহাজ্ব সজীব আহমেদ, দৈনিক ইনকিলাব প্রতিনিধি এম.আর.রুবেল, সাপ্তাহিক অবলম্বন পত্রিকার বার্তার সম্পাদক শামীম আহমেদসহ স্থানীয়-জাতীয় বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।গত বৃহস্পতিবার ভৈরবের কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের মিরারচর গ্রামে জমি সংক্রান্ত এক সালিস দরবারে একপক্ষের হয়ে কথা বলায় অপরপক্ষের লোকজনের আক্রমণের শিকার হন সাংবাদিক আশরাফুল ও তার পর বড় ভাই মজিবুর। দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত আশরাফুল ও তার ভাই মজিবুরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে ঢাকায় পাঠান কর্তব্যরত চিকিৎসক।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, ভৈরব উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের মিরারচর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদিরের সন্তানদের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। গত ৮ জুন বৃহস্পতিবার এ নিয়ে বাড়িতে এক সালিস দরবার বসে। দরবারে আব্দুল কাদিরের বড় ছেলে আব্দুর সাত্তারের পক্ষে আসা দরবারী এলাকার মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে বরজু মিয়া (৫০) অন্যায়ভাবে অপর ভাইদের ওপর রায় চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে দৈনিক আমাদের কণ্ঠের ভৈরব প্রতিনিধি আশরাফুল আলমের বড় ভাই মজিবুর রহমান এর প্রতিবাদ করেন। এ সময় বরজু ও তার সমর্থকরা মজিবুরের ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ চালায়। এ সময় আশরাফুল ভাইকে বাঁচাতে গেলে তিনিও আক্রমণের শিকার হয়ে গুরুতর আহত হন।

এ ঘটনায় আহতদের বাবা সাইদুর রহমান বাদী হয়ে পরের দিন ভৈরব থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ ওই মামলার প্রধান আসামী বরজু মিয়াকে গ্রেফতার করে গতকাল জেল-হাজতে পাঠায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.