ডেস্ক : অবশেষে মডেল জাকিয়া মুন আলোচিত বিলাসবহুল পোরশে গাড়ি হারালেন। মুনের ব্যবহৃত কার্নেট সুবিধার গাড়িটি রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করেছে ঢাকা কাস্টমস হাউজ। একই সাথে শুল্কমুক্ত সুবিধার গাড়ির অপব্যবহারের দায়ে মডেল মুনকে ব্যক্তিগতভাবে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

দীর্ঘ তদন্ত ও বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে এ রায় জারি করা হয়েছে। আজ সোমবার শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান অর্থসূচককে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ড. মইনুল খান জানান, শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে ২০১৬ সালের ৬ জুন গুলশান ১ এর রোড ৩৩, বাড়ি ১০ এর পার্কিং থেকে বিলাসবহুল পোরশে গাড়ি আটক করা হয়।

আটককালে গাড়িতে ব্রিটিশ নম্বরযুক্ত (AS05AUM) নম্বরপ্লেট পাওয়া যায়। ব্রিটেন থেকে কার্নেট সুবিধায় এনে শর্ত অনুযায়ী পোরশে গাড়িটি আবার বিদেশে না নিয়ে অবৈধভাবে ব্যবহৃত হয়েছিল।

এতে সরকারের প্রায় ২ কোটি ২৭ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকি হয়েছে। গাড়ির মূল্য ছিল প্রায় ৩ কোটি টাকা। গাড়িটি মডেল জাকিয়া মুন ব্যবহার করে আসছেন।

একই অপরাধে মডেল মুনের কথিত স্বামী গার্মেন্টস ব্যবসায়ী শফিউল আলম মহসীন ও গাড়ির আমদানিকারক ব্রিটিশ নাগরিক আফজাল আলীকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা অনুসন্ধান শেষে তাদের বিরুদ্ধে শুল্ক ফাঁকির অভিযোগ তৈরি করে বিচারের জন্য কাস্টমস হাউসের কমিশনারের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে।

কমিশনার শুল্ক আইনে তার বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আজ রায় প্রকাশ করেন। এখন মডেল জাকিয়া মুনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়েরের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে শুল্ক গোয়েন্দা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.