‘গার্মেন্টস শ্রমিকরা রাষ্ট্রীয় অবহেলার শিকার’

 ‘গার্মেন্টস শ্রমিকরা রাষ্ট্রীয় অবহেলার শিকার’

নিজস্ব প্রতিবেদক : গার্মেন্টস শ্রমিকরা রাষ্ট্রীয় অবহেলার শিকার বলে উল্লেখ করেছেন গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি আহসান হাবিব বুলবুল। প্রতি বছর রোজার শুরুতে শ্রম মন্ত্রণালয় মালিকদের সাথে বৈঠক করে সকল পোশাক ও শিল্পে শ্রমিকদের বেতন বোনাস দ্রুত দেওয়ার কথা বললেও তা দেওয়া হয়না বলেও জানান তিনি।

তাই এবার ২০ রমজানের মধ্যে সকল গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন-বোনাস প্রদানের দাবি জানানো হয়েছে। অন্যথায় গার্মেন্টস শ্রমিকদের নিয়ে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিভিন্ন গার্মেন্টস সংগঠন ও গার্মেন্টস শ্রমিকদের অংশগ্রহণে এক পৃথক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

আহসান হাবিব বুলবুল বলেন, ২০১৩ সালে গার্মেন্টস খাত রপ্তানি করেছিল ১৯ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে রপ্তানি করছে ২৮ বিলিয়ন ডলার। জাতীয় রপ্তানির ৮০ শতাংশ আসে গার্মেন্টস খাত থেকে। তবু গার্মেন্টস শ্রমিকরা সামান্য বেতন পান। রমজান বা ঈদ ঘনিয়ে আসলে অনেক গার্মেন্টস মালিক বেতন-বোনাস পরিশোধে গড়িমসি করেন। শ্রমিকদের ২০ রমজানের মধ্যে বেতন-বোনাস পরিশোধের দাবি জানান তিনি।

তিনি বলেন, প্রতি বছর রোজার শুরুতে শ্রম মন্ত্রণালয় মালিকদের সাথে বৈঠক করে সকল পোশাক ও শিল্পে শ্রমিকরদের বেতন বোনাস পরিশোধের আশ্বাস দেন। কিন্তু মালিকরা ঈদের পূর্ব পর্যন্ত কিছু বেতন বোনাস দিয়ে শ্রমিকদের জিম্মি করেন। শ্রমিকদের তখন আন্দোলন করারও সুযোগ থাকে না। তাছাটা প্রতিবাদ করলে হয়রানি করা হয়।

২০ রমজানের মধ্যে বেতন বোনাস না দিলে কোন উদ্ভূত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে তার দায় মালিকদের নিতে হবে বলে হুঁশিয়ার করেন তিনি।

একই সাথে তিনি গার্মেন্টস শ্রমিকদের আবাসন চিকিৎসা রেশনিং এর জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ এবং গার্মেন্টস শ্রমিকদের হয়রানি, তাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের সুপারিশ করেন তিনি।

এছাড়া গার্মেন্টস শ্রমিক অধিকার আন্দোলন, গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারি ঐক্য পরিষদসহ আরো কয়েকটি গার্মেন্টস সংগঠনের ব্যানারে কয়েকশ গার্মেন্টস শ্রমিক মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.