হিন্দুদের বাংলাদেশ থেকে বের করে দিতে হবে

 হিন্দুদের বাংলাদেশ থেকে বের করে দিতে হবে

কবীর চৌধুরী তন্ময় : শিরোনামের লেখাটি কখনো সংযুক্ত হয়ে অনেক বড় আবার কখনো এক-দুই লাইনের মাঝেই সীমাবদ্ধ রেখে অনেকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছে আবার অনেকে অন্যের স্ট্যাটাসে কমেন্টস করে নিজেদের মুল পরিচয়টুকু তুলে ধরেছে।

কেন তাঁরা এই ধরণের মানসিকতা প্রকাশ করেছে তা অনুধাবন করার জন্য অনেককে ব্যক্তিগতভাবে ফোন করে জানার চেষ্ঠা করেছি। সরাসরি বসে কথা বলেছি। আবার অনেকে সাথে আড্ডা দিয়ে এই প্রসংগে কথা তুলে বুঝার চেষ্ঠা করেছি। তবে সবখানেই সরাসরি কোনো উত্তর না দিলেও ঘুরিয়ে-প্যাচিয়ে তাঁরা তাঁদের অবস্থানে অনড়। হিন্দুদের সাথে চলাফেরা যাবে না। তাঁদের কিছু খাওয়া যাবে না। তাঁদের সাথে বন্ধুত্ব করা যাবে না! এই যাবে না’র সংখ্যা অ-নে-ক লম্বা!

জিজ্ঞেস করেছি, হিন্দুদের কোনো তথ্য নেওয়া যাবে? তাঁদের কোনো তথ্য বিশ্বাস করা যাবে? তাঁদের কিছু গ্রহণ করা যাবে?
উত্তরে পরিচিত ব্যক্তিগুলো সরাসরি না বলে দিয়েছে। অর্থাৎ হিন্দুদের কোনো কিছুই গ্রহণ বা বিশ্বাস করা যাবে না।
আমি যখন বলেছি, পবিত্র কোরআন শরীফ তো হিন্দু লোক গিরিস চন্দ্র সেন বাংলায় অনুবাদ করেছে। সেটা ষড়যন্ত্র করে সেঁ তো মিথ্যাচারও করতে পারে। ভুল তথ্য-উপাত্ত সংযুক্ত করতে পারে। তাহলে আপনারা কোরআনের এই বাংলা অর্থগুলোকে বিশ্বাস করেন কেন? সেই বাংলা অর্থসহ কোরআনকে গ্রহণ করেন কেন?

অদ্ধুধ ব্যাপার, এখানেও ঘুরিয়ে-প্যাচিয়ে উত্তর। এটা যাচাই-বাচাই করে আমরা গ্রহণ করেছি বলে নিজেরা কী সুন্দর করে মিথ্যাচার করে। যদিও আমি ব্যক্তিগতভাবে জানি, এই ধরণের লোকদের যাচাই-বাচাই তো দূরের কথা, পড়ার বা বুঝার ক্ষমতাও নেই।

বললাম, আপনার বিশ্বাস মতে আমিও মনেকরি- ইসলাম পৃথিবীর একমাত্র সঠিক ধর্ম। যার স্রষ্টা মহান আল্লাহ! আমি এও বিশ্বাস করি, পৃথিবীর নিয়ন্ত্রকও আল্লাহ! তাহলে আল্লাহ কেন সূর্যের আলো, চন্দ্রের আলো, পানি-বাতাসসহ পৃথিবীর সকল কিছু হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টানসহ অন্যান্য সকল ধর্মের মানুষকে সমানভাবে বণ্টন করেছে? আল্লাহ কেন ঐসব অন্য ধর্মের মানুষকে হিংসে না করে, ধ্বংস না করে পৃথিবীর সকল সুযোগ-সুবিধা প্রদান করছে?

মুসলমানরা কী মহান আল্লাহ’র আদর্শ ধারণ করে না? আল্লাহ’র নিদের্শ মতে চলে না? আল্লাহ যা করেন বা যেভাবে চলতে বলেন মুসলমানরা কী সেভাবে চলে না এই ধরণের প্রশ্ন করাতে তাঁদের কাছ থেকে ভালো কোনো উত্তর পেলাম না।

বন্ধুগণ! সকাল বেলায় যে সূর্যের আলো আপনার ঘরের জানালা দিয়ে আপনাকে স্পর্শ করে, সেই একই সূর্যের আলো-তেজ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টানসহ অন্যান্য ধর্মের সকল ব্যক্তিদেরও স্পর্শ করে। তেমনিভাবে দিন-রাত ও পৃথিবীর সকল সুযোগ-সুবিধা আপনি যেভাবে ভোগ করেন, অন্যান্য ধর্মের বন্ধুরাও একই ভাবে ভোগ করে।

এখানে আলাদা-আলাদা স্রষ্টারা যেহেতু ঝগড়া করছে না, বোমা মারছে না, একে অপরকে তাদের নির্দিষ্ট জায়গা থেকে বের করে দিতে নোংরা মন-মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ ঘটাচ্ছে না; সেখানে আমরা কেন হিন্দুদের বাংলাদেশ থেকে বের করে দিতে ফেসুবকে স্ট্যাটাস-কমেন্টস করবো? আমরা কেন হিন্দুদের মালাউন বলে গালি দিবো? আমরা কেন তাঁদের আঘাত করে বক্তব্য-বিবৃতি দিবো? কেন আন্দোলন সংগ্রাম করবো বলুন…

লেখাটি লেখকের ফেসবুক পাতা থেকে নেয়া। লেখক : সভাপতি, বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.