আদালত প্রতিবেদক: সাবেক প্রধান বিচারপতি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা লতিফুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আজ (মঙ্গলবার) বেলা ১১টার পর থেকে সুপ্রিম কোর্ট বসছেন না। এর আগে সকালে রাজধানীর শমরিতা হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

হাইকোর্টের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) সাব্বির ফয়েজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, তার (লতিফুর রহমান) মৃত্যুতে আজ দুপুরের পর হাইকোর্ট বিভাগ আর বসছেন না।

গত ২৩ মে থেকে বিচারপতি লতিফুর রহমান রাজধানীর শমরিতা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। নিউমোনিয়াসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন তিনি। মুত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।

আজ (মঙ্গলবার) বাদ জোহর সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে লতিফুর রহমানের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

লতিফুর রহমান ১৯৩৬ সালে ১ মার্চ যশোর শহরে জন্মগ্রহণ করেন। পেশাজীবনের শুরুতে লতিফুর রহমান কায়েদে আজম কলেজ (বর্তমান শহিদ সোহরাওয়ার্দি কলেজ) ও জগন্নাথ কলেজে (বর্তমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) প্রভাষক হিসেবে কাজ করেন।

১৯৬০ সাল থেকে তিনি ঢাকা হাইকোর্টে আইন পেশা শুরু করেন। ১৯৭৯ সালে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন লতিফুর রহমান। ১৯৮১ সালে তার বিচারকের চাকরি স্থায়ী হয়।

১৯৯১ সালের ১৫ জানুয়ারিতে তিনি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি তিনি দেশের প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২৮ ফেব্রুয়ারি তিনি প্রধান বিচারপতি থাকাকালীন অবসর গ্রহণ করেন। এ ছাড়া অবসরপ্রাপ্ত বিচাপতি হিসেবে তিনি ২০০১ সালের ১৫ জুলাই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টার দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.