আমিরাতে শ্রম আইনের খসড়া অনুমোদন : সুবিধা বাড়ল গৃহকর্মীদের

 আমিরাতে শ্রম আইনের খসড়া অনুমোদন : সুবিধা বাড়ল গৃহকর্মীদের

ডেস্ক : গৃহকর্মীদের অধিকার সুরক্ষায় নতুন শ্রম আইনের খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফেডারেল ন্যাশনাল কাউন্সিল (এফএনসি)। বুধবার দেশটির জাতীয় দৈনিক খালিজ টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, দেশটির বাসিন্দাদের বসবাসের জন্য সবচেয়ে ভালো সেবাদানের ধারাবাহিক চেষ্টার অংশ হিসেবে নতুন শ্রম আইনের খসড়ায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এছাড়া গৃহকর্মীদের সহায়তা, অধিকার সুরক্ষা, দায়িত্ব ও নিয়োগ প্রক্রিয়াসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ন্ত্রণ করাই বিশেষ এই আইনের লক্ষ্য।

নিয়োগকারী, শ্রমিক ও নিয়োগকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে সম্পর্ক নিয়ন্ত্রণে নতুন শ্রম আইনের খসড়ায় গুরুত্বারোপ করেছে এফএনসি। নতুন এই আইনে ১৮ বছরের নিচের শ্রমিক নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এছাড়া শ্রমিক নিয়োগে আমিরাতের নাগরিক নন; এমন কেউ মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করতে পারবেন না।

খসড়ায় বলা হয়েছে, শ্রমিক নিয়োগে আইনের খসড়ায় যেসব শর্ত, প্রক্রিয়া ও পদ্ধতি জুড়ে দেয়া হয়েছে; তা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত কোনো গৃহকর্মী কাজে যোগ দিতে পারবেন না।

কাজের ধরন, প্রকৃতি, মজুরির পরিমাণ, শারীরিক, স্বাস্থ্য ও মানসিক সুস্থ্যতার প্রমাণসহ অন্যান্য শর্ত পূরণ ছাড়া নিয়োগকারী অফিস কর্মীকে তার দেশ থেকে আমিরাতে আনতে পারবে না।

এতে বলা হয়েছে, গৃহকর্মীর সাপ্তাহিক ছুটি পাওয়ার অধিকার রয়েছে। তবে যদি সাপ্তাহিক ছুটি না পান তাহলে বিনিময়ে মজুরি পরিশোধ করতে হবে। বাৎসরিক ছুটি পাবেন ৩০ দিনের। এছাড়া অসুস্থ শ্রমিকের চিকিৎসার জন্য ৩০ দিনের ছুটি পাওয়ার অধিকার রয়েছে। সংশোধিত খসড়া আইনে শ্রমিকদেরকে তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর খরচ নিয়োগকারী অফিস বহন করবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

আমিরাতের নতুন এই আইন বলছে, গৃহকর্মীরা পাসপোর্ট নিজের কাছে রাখতে পারবেন। প্রত্যেকদিন অন্তত ১২ ঘণ্টার বিশ্রাম পাবেন। আবু ধাবিতে এফএনসির প্রধান কার্যালয়ে ১৭তম অধিবেশনে নতুন শ্রম আইনের খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়।

mimmahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.